রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব আগামী বাজেটেও, কমবে উন্নয়ন প্রকল্পের সংখ্যা

|

জাতীয় সংসদ ভবন।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব পড়বে আগামী বাজেটে। ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় এর আকার প্রায় ৮ লাখ কোটি টাকা ধরা হলেও, প্রস্তাব আসছে ৬ লাখ ৭৭ হাজার কোটি টাকার। কমানো হচ্ছে উন্নয়ন প্রকল্পের সংখ্যাও। পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলছেন, অপচয় কমিয়ে অর্থ সাশ্রয়ে মনোযোগী হবে সরকার। তারপরও মূল্যস্ফীতি ৬ শতাংশে ধরে রাখা কঠিন। এ অবস্থায়, সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ভর্তুকি বাড়ানোর পরামর্শ অর্থনীতিবিদের।

মানবিক গণ্ডি ছাপিয়ে বিশ্ব অর্থনীতির মাথাব্যথা এই রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধ। বন্ধ হয়ে গেছে খাদ্যশস্যসহ নানা পণ্য আমদানির গুরুত্বপূর্ণ রুট। যুদ্ধের ডামাডোলে বাড়ছে জ্বালানি তেলের দাম। মূল্যস্ফীতি নিয়ে ভোগান্তি বাড়ছে পশ্চিমা দেশে। পণ্যের দাম বৃদ্ধির আঁচ লাগছে বাংলাদেশেও। তাই উচ্চাভিলাষের বদলে বাজেট নিয়ে সংকোচনের পথে হাঁটছে সরকার।

প্রবৃদ্ধির চেয়ে গুরুত্ব পাচ্ছে পণ্য ও সেবার দাম নিয়ন্ত্রণ। তাই মূল্যস্ফীতি সাড়ে ৫ শতাংশে আটকে রাখতে চান নীতি নির্ধারকরা। প্রায় ১ শতাংশ কমেছে জিডিপির প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন। উন্নয়ন কর্মসূচির ভাবনা থেকে কাটছাঁট হয়েছে ১৬ হাজার কোটি টাকা। পরিকল্পনা বিভাগ বলছে, বাস্তবতা বিবেচনায় এটি হবে সোনালী অর্থনীতির যুগে রুপালি বাজেট।

এ নিয়ে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, কিছুটা হলেও সংকুুচিত মুদ্রানীতি নিতে হচ্ছে। কারণ তেমনটা না হলে দাম বেড়ে যাবে আরও। মুদ্রাস্ফীতির ভয় কাজ করছে উল্লেখ করে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা মূল্যস্ফীতি ৫.৫ শতাংশ ধরে রেখেছি। তবে এই যুদ্ধ চলমান থাকলে এই লক্ষ্যমাত্রা ধরে রাখা যাবে তেমনটা বলা যায় না।

সবেমাত্র কোভিডের ধাক্কা সামলে উঠছিল অর্থনীতি। সুখবরের আভাস ছিল ৪৬ শতাংশ রফতানির বৃদ্ধির খবরে। কিন্তু রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধ পণ্য আমদানির খরচ বাড়াচ্ছে। ক্রান্তিকাল দেখতে হচ্ছে রিজার্ভের চাপ নিয়ে। তাই হতদরিদ্রকে বাঁচাতে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ভর্তুকি বাড়ানোর কারণ আছে। কিন্তু সরকার কি প্রস্তুত?

সিপিডির সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, মুদ্রাস্ফীতি কিছুটা বাড়লেও তেমন আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আমাদের গুরুত্ব দিতে হবে সম্পদ আহরণের দিকে। কারণ আমরা যতো সংখ্যক ট্যাক্স আদায় করতে পারবো, ততো খরচ করার সক্ষমতা বাড়বে।

আগামি ৯ জুন জাতীয় সংসদে ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply