‘কিলার’ মিলারে আইপিএলের ফাইনালে গুজরাট

|

ছবি: সংগৃহীত

রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে শেষ ওভারে জেতার জন্য গুজরাট টাইটানসের দরকার ছিল ১৬ রান। স্ট্রাইকপ্রান্তে ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটার ডেভিড মিলার। প্রথম তিন বলেই তিন ছক্কা মেরে সব হিসেব-নিকেশ নিজেদের পক্ষে নিয়ে নিলেন তিনি। আর প্রথম কোয়ালিফায়ারে জিতে তার দল উঠে গেলে আইপিএল ২০২২ আসরের ফাইনালে।

টস জিতে প্রথমে বোলিং বেছে নিয়েছিলেন গুজরাট অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়া। দ্বিতীয় ওভারেই যশস্বী জয়সওয়ালের উইকেট হারায় রাজস্থান। এরপর ৬৮ রানের জুটি গড়ে দলের সংগ্রহ বড় করার ইঙ্গিত দেন জস বাটলার ও অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসন। ৭৯ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৪৭ রান করে ফিরে যান স্যামসন। এরপর দেবদূত পাডিক্কালকে নিয়ে ৩৭ রানের জুটি গড়েন বাটলার। প্রথমদিকে ১০০ ছুই ছুই স্ট্রাইকরেটে ব্যাট করলেও সময়ের সাথে সাথে হাত খুলে মারতে থাকেন বাটলার। ১১৬ রানের মাথায় পাডিক্কালের বিদায়ের পর শিমরন হেটমায়ারকে সঙ্গে নিয়ে গড়েন ৪৫ রানের জুটি। যেখানে হেটমায়ারের অবদান মাত্র ৪ রানের। শেষ পর্যন্ত রাজস্থানের ইনিংস থামে ১৮৮ রানে। ৫৬ বলে ৮৯ রান করে রান আউটে কাটা পড়েন বাটলার।

গুজরাটের হয়ে একটি করে উইকেট নেন চার বোলার। তবে উইকেট না পেলেও সেরা বোলিং করেছেন আফগান লেগ স্পিনার রশিদ খান। ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে মাত্র ১৫ রান দেন তিনি।

১৮৯ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে শূন্য রানেই ঋদ্ধিমান সাহার উইকেট হারায় গুজরাট। তবে এরপর ৭২ রানের জুটি গড়ে দলকে ম্যাচে ফেরান শুভমান গিল ও ম্যাথু ওয়েড। দলীয় ৭২ ও ৮৫ রানে সাজঘরের পথ ধরেন তারা। তবে, অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়া ২৭ বলে ৪০ রান করে ও ডেভিড মিলার ৩৮ বলে ৬৮ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply