ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৪০ দিনে ১৫ অজ্ঞাত লাশ উদ্ধার

|

একের পর এক অজ্ঞাত পরিচয় লাশ উদ্ধারের ঘটনায় উদ্বিগ্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মানুষ। পাঁচ সপ্তাহে নদী-ডোবা-ধানি জমি থেকে উদ্ধার হয়েছে অন্তত ১৫টি লাশ। বিকৃত লাশের পরিচয় শনাক্তে হিমশিম খাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ আইনজীবীদের।

হত্যার পর মরদেহ ফেলে দেয়া হয়েছিল খালে। চার এপ্রিল বিকৃত সেই লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অজ্ঞাত পরিচয় লাশ উদ্ধারের এমন ঘটনা এখন অনেকটাই নিয়মিত। ৪০ দিনে নদী-ডোবা-ধানি জমিতে মিলেছে নারীসহ অন্তত ১৫ জনের মরদেহ। অস্বাভাবিক এসব মৃত্যুর ঘটনায় আতঙ্কিত স্থানীয়রা।

১৫টি লাশের মধ্যে শনাক্ত হয়নি ১১ জনের। হত্যার পর এসব মরদেহের মাথাসহ বিভিন্ন অঙ্গছেদ করেছে দুর্বৃত্তরা। ময়না তদন্তে নমুনা সংগ্রহের পর যেগুলো হস্তান্তর করা হয়েছে পুলিশের কাছে।

আইনজীবীরা বলছেন, খুনের ঘটনা ধামাচাপা দিতেই হত্যার পর লাশ পানিতে ফেলে দেয় অপরাধীরা। অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানেও আছে গাফিলতির অভিযোগ।

পুলিশের দাবি, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই উদঘাটিত হয়েছে মৃত্যু রহস্য। আইনের আওতায় আনা হবে সব অপরাধীকে। অন্য কোথাও হত্যা করে লাশ ভাসিয়ে দেয়া হচ্ছে নদী-ডোবায় বলে ধারণা করছে পুলিশের।









Leave a reply