টঙ্গীতে পুলিশ কর্মকর্তাকে কামড়ে দেয়ায় রিকশা চালক আটক

|

আটককৃত রিকশা চালক দেলোয়ার হোসেন (২৭)।

গাজীপুর প্রতিনিধি:

গাজীপুরের টঙ্গীতে পুলিশ কর্মকর্তাসহ দুইজনকে কামড়ে দেয়ায় আটক হয়েছেন দেলোয়ার হোসেন (২৭) নামের এক রিকশাচালক। টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাবেদ মাসুদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

রোববার (২২ মে) সন্ধ্যার দিকে টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। দেলোয়ার টঙ্গীর মরকুন মধ্যপাড়া এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রোববার সন্ধ্যার দিকে দেলোয়ারের রিকশায় চেপে দুই আরোহী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে আসেন। এ সময় ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ার একপর্যায়ে রিকশাচালক দেলোয়ার ওই দুই আরোহীকে কিল-ঘুষি মেরে আহত করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এ ফোন করলে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) তোফাজ্জাল হোসেন
ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

এ সময় পুলিশকে দেখে দৌড়ে পালাতে গেলে এএসআই তোফাজ্জাল রিকশাচালক দেলোয়ারকে ধরে ফেললে তোফাজ্জল হোসেনের ডান হাতের আঙ্গুলে কামড়ে দেন দেলোয়ার। এ সময় পাশে থাকা হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মী ইমন এগিয়ে গেলে তাকেও কামড়ে দেন দেলোয়ার।

পরে, আহতদের টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।

রিকশা চালক দেলোয়ার বলেন, ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের সাথে ঝগড়া হয়। পুলিশ আসার পর আমার কোনো কথা
শুনছিল না, তাই কামড়ে দিয়েছি।

টঙ্গী (পূর্ব) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাবেদ মাসুদ বলেন, রিকশাচালক দেলোয়ার মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন এবং
মাদকসেবী। যাত্রীদের সঙ্গে ভাড়া নিয়ে তর্কের জেরে মারামারির ঘটনায় স্থানীয় একজন ৯৯৯-এ ফোন করে। তখন
এএসআই তোফাজ্জল সেখানে গেলে রিকশাচালক দেলোয়ার ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে কামড়ে দেয়। আহত পুলিশ সদস্য চিকিৎসা নিয়ে এখন সুস্থ আছেন। রিকশা চালক দেলোয়ারকে তাৎক্ষনিক আটক করে থানায় আনা হলেও পরবর্তীতে পরিবারের সদস্যদের জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানান তিনি।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply