নির্বাচনি দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায়ে কালকিনির ইউএনও-ওসিকে প্রত্যাহার

|

ফাইল ছবি

নির্বাচনি দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায়ে মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবং ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রোববার (২২ মে) নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব (জনসংযোগ) এস এম আসাদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চলতি বছরের ১৭ মে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় কিছু দুস্কৃতিকারী চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিলে ইচ্ছুক এক ব্যক্তিকে বাধা দেয় এবং রিটার্নিং অফিসারকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন ওই ইউনিয়নের নির্বাচনি তফসিল স্থগিত করে। সেই সাথে মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারকে বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেয় কমিশন।

তদন্ত প্রতিবেদনে প্রাপ্ত তথ্য ও দলিল পর্যবেক্ষণ-পর্যালোচনা করে বিশেষ বিধান আইন ও ইউপি নির্বাচন বিধিমালার নিয়ম অনুযায়ী দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে প্রত্যাহার করে তার জায়গায় উপযুক্ত কর্মকর্তা নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছে কমিশন।

এছাড়াও, ইউপি নির্বাচন চলাকালে ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ রক্ষায় ব্যর্থতা ও সরকারি দায়িত্বে অবহেলার দায়ে এবং সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রশাসনিক কারণে কালকিনি থানার অফিসার ইনচার্জকে প্রত্যাহার করে তার জায়গায় উপযুক্ত কর্মকর্তা নিয়োগের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে, কালকিনির পূর্ব এনায়েতনগরের ইউপি নির্বাচন যে পর্যায়ে স্থগিত করা হয়েছিল, সে পর্যায় থেকে তফসিল ঘোষণা করা হযেছে। নতুন সময়সূচি অনুযায়ী, ভোট গ্রহণের তারিখ আগামী ১৫ জুন স্থির রাখা হয়েছে। এক্ষেত্রে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ আগামী ২৩ মে, মনোনয়নপত্র বাছাই  ২৪ মে,  প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৯ মে এবং প্রতীক বরাদ্দের জন্য ৩০ মে দিন ধার্য করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এ নির্বাচনে ইতোপূর্বে যারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন, তাদের নতুন করে আর মনোনয়নপত্র দাখিলের প্রয়োজন নেই বলেও জানিয়েছে কমিশন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও  বলা হয়, মনোনয়নপত্র দাখিলে বাধা প্রদান, মনোনয়নপত্র দাখিলকালে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ইত্যাদি অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সংঘটনের জন্য কালকিনি উপজেলার পূর্ব এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মাহাবুব আলমের বিরুদ্ধে কেন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, এই মর্মে কারণ দর্শানোর জন্যও কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছে।

এদিকে, মেহেরপুর পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি ভেঙে নির্ধারিত সময়ের আগেই নির্বাচনি প্রচারণা চালানোর দায়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জনাব মাহফুজুর রহমান (রিটন) কে সতর্ক করা হয়েছে।

মাহফুজুর রহমানের নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের বিষয়টি তদন্ত করে সত্যতা পাওয়া যায় এবং প্রার্থী নিজেও আচরণবিধি ভঙ্গের বিষয়ে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের অপরাধ না করার অঙ্গীকার ও এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তি না হওয়ার শর্তে নির্বাচন কমিশন তাকে সতর্ক করছে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply