যেকোনো স্থানে জরুরি প্রয়োজনে স্যানিটারি ন্যাপকিনের সুবিধা এখনও নারীর নাগালের বাইরে

|

বাংলাদেশের নারীদের জন্য পাবলিক স্পটে স্বাস্থ্যকর টয়লেট এবং তাতে মাসিককালীন সুরক্ষা সামগ্রী আশা করা বিলাসিতা বৈকি! যদিও নারীর মৌলিক অধিকারের তালিকায় এ সকল সুবিধা থাকার কথা ছিল। তবে তাতে রাষ্ট্রের তেমন কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই। বেসরকারি উদ্যাগে রাজধানীর কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বাজার দর থেকে কম মূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন সরবরাহের জন্য ভেন্ডিং মেশিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের কণ্ঠে ছিল এমন সুবিধা দেশের বিভিন্ন স্তরে পৌঁছে দেয়ার দাবি।

প্রকৃতির খুব স্বাভবিক নিয়মে হওয়া মাসিককালীন স্বাস্থ্যের কথা নারীকে ভাবতে হয় কঠিন বাস্তবতায়। সে ভাবনায় ব্যতিক্রম হোম ইকোনোমিক্স কলেজের হলে এসিআই কোম্পানির ভেন্ডিং মেশিনে বাজার দর থেকে কম মূল্যে সেনিটারি প্যাড পাওয়ার দৃশ্যটি।

চলতি পথে রাজধানীতে নারীদের ওয়াশরুম সমস্যা, আর যদি হঠাৎ করে পিরিয়ডের আগমন হয় তবে তো কথাই নেই! এ সমস্যা কিছুটা কমানোর জন্য ইডেন মহিলা কলেজের হলগুলোতে ফ্রিডম সেনিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডর মেশিন স্থাপন করা হয়েছে।

বিভিন্ন পাবলিক স্পটে, নারীদের মৌলিক এ সুবিধার দাবি বহুদিনের। যদিও তাতে মন গলেনি দায়িত্বশীলদের। শিক্ষার্থীরা মনে করেন, নারীদের মাসিককালীন স্বাস্থ্যজনিত সমস্যার সমাধান হতো সুলভ মূল্যে হাতের নাগালে সেনিটারি ন্যাপকিন পাওয়া গেলে।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply