খাবার সংকট হওয়ায় বর-কনে পক্ষের সংঘর্ষ, আহত অন্তত ১০

|

স্টাফ রিপোর্টার, নরসিংদী:

নরসিংদী রায়পুরার বিয়ে বাড়িতে খাবার সংকটকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। কোনো পক্ষই মামলা করেনি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার (২০ মে) বিকেলে রায়পুরার পূর্ব হরিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বিয়ে সম্পন্ন না করেই বর ফিরে যাওয়ায় আত্মহত্যার চেষ্টা করেন নববধূ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, রায়পুরার মুসাপুর ইউনিয়নের পূর্ব হরিপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের মেয়ের (২০) সাথে রায়পুরা ইউনিয়নের মাহমুদপুর গ্রামের আতাউরের ছেলের (২৫) সাথে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই সূত্র ধরেই দুই পরিবারের সম্মতিতে ২০ মে (শুক্রবার) বিয়ের দিন ধার্য হয়। দুপুরের পর যাত্রী আসলে শুরু হয় খাওয়া-দাওয়া। এক পর্যায়ে বরপক্ষকে খাবার পরিমাণে কম দেয়ায় বরের বাবা রফিকুল ইসলাম খাবার ভর্তি প্লেট ঢিল মেরে ফেলে দিলে শুরু হয় দুপক্ষের তর্কবিতর্ক। তারপর হাতাহাতি থেকে শুরু হয় মারামারি। এ ঘটনায় স্থানীয় সাংবাদিকসহ দু’পক্ষের ১০ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে রায়পুরা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলেও বিয়ে সম্পন্ন না করেই ফিরে যায় বরসহ বরযাত্রীরা। অন্যদিকে, বিয়ে ভেঙ্গে যাওয়ায় আত্মহত্যার চেষ্টা করেন কনে।

রায়পুরা থানার এসআই রাকিবুল ইসলাম বলেন, বর পক্ষকে খাবার কম দেয়ায় বরের পিতা খাবারসহ প্লেট ফেলে দিলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। কিন্তু পরে আমরা চলে আসলে শুনতে পাই বর পক্ষ বিয়ে সম্পন্ন না করেই চলে গেছে। এ ঘটনার পর কনে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। তবে এ ঘটনায় কোনো পক্ষই অভিযোগ দায়ের করেনি।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply