লক্ষ্মীপুরে অ্যাপসের মাধ্যমেই ঘরে ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে অ্যাম্বুলেন্স

|

লক্ষ্মীপুরের অ্যাম্বুলেন্স সেবা।

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:

লক্ষ্মীপুরে গ্রামীণ পর্যায়ে হাসপাতালে জরুরি সেবা পৌঁছে দিতে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে প্রশাসন। রোগীদের যথাসময়ে হাসপাতালে পৌঁছানোসহ নানা স্বাস্থ্য সহায়তায় সেবা দিতে চালু করা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস। অল্প খরচে কম সময়ে স্বাস্থ্য সেবা পেয়ে খুশি স্থানীয়রা।

সম্প্রতি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন লক্ষ্মীপুরের বাসিন্দা মফিজুল ইসলামের তার বোন। দ্রুত হাসপাতালে নেয়ার জন্য অ্যাপের সাহায্যে অ্যাম্বুলেন্স ডাকেন তিনি। কাঙ্ক্ষিত সময়ের মধ্যেই বাসায় পৌঁছায় অ্যাম্বুলেন্স। দ্রুত গতির সেবা পেয়ে স্বস্তি পান মফিজুল। তার মতো লক্ষ্মীপুরের ৫ উপজেলার অনেক রোগীই সেবা নিচ্ছেন ‘স্বপ্নযাত্রা’ অ্যাম্বুলেন্সের। স্থানীয়রা জানান, মোবালের প্লে স্টোর থেকে প্রথমে স্বপ্নযাত্রা নামের অ্যাপ ডাউনলোড করতে হয়। সেখান থেকে বিস্তারিত তথ্য ও সেবা পাওয়া যায় অ্যাম্বুলেন্সের।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে শুরু হয় ‘স্বপ্নযাত্রা’ সার্ভিসের। এরপর রামগতি, কমলনগরসহ সব উপজেলায় রোগীদের সেবায় কাজ করছে ৭টি অ্যাম্বুলেন্স। ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। চর বাদাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন জসিম বলেন, এই স্বপ্নযাত্রা অ্যাম্বুলেন্স সেবার মাধ্যমে আমার এলাকার মানুষের যথেষ্ট উপকার হয়েছে। পাবলিক অ্যাম্বুলেন্সের মতো এতো ভাড়াও দেয়া লাগে না।

স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতেই ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগ বলে জানালেন জেলা প্রশাসক। জেলা প্রশাসক আনোয়ার হোছাইন আকন্দ বলেন, গ্রামে যেনো মানুষ শহরের সেবা পেতে পারে, মাতৃমুত্যু ও শিশুমৃত্যুর হার কমানো যায় সে লক্ষ্যেই এই উদ্যোগ। এটি অ্যাপস ভিত্তিক এবং এই সেবা পরিচালনার জন্য নির্দিষ্ট নিতিমালাও রয়েছে। এই উদ্যোগ স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত উন্মোচন করবে বলেও আশা তার।

স্বপ্নযাত্রা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসে নন এসি প্রতি কিলোমিটারের জন্য ১৮ টাকা ও এসি ২০ টাকা হারে ভাড়া দিতে হয়।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply