২৫ বিঘার বেশি কৃষিজমি থাকলে ভূমি উন্নয়ন কর দিতে হবে

|

২৫ বিঘার বেশি কৃষিজমি থাকলে দিতে হবে ভূমি উন্নয়ন কর। এর নীচে জমি থাকলে কর দিতে হবে না। টানা ৩ বছর কর না দিলে ৬.২ শতাংশ হারে জরিমানা দিতে হবে। ধর্মীয় উপসনালয়ের ক্ষেত্রে কর দিতে হবে না। এমন নিয়ম রেখে ভূমি উন্নয়ন কর আইন, ২০২২ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) এ আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়। মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক শেষে সচিবালয়ে এসব কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। জানান, কৃষি অথবা কৃষিপণ্যের উৎপাদন করে শিল্প কারখানা করে তাহলে ৬০ বিঘার বেশি জমিতে করতে পারবে।

ভূমি উন্নয়ন কর আইন ছাড়াও এদিন ভূমি সংস্কার আইন, জাতীয় মানসিক স্বাস্হ্য নীতি, হাট ও বাজার স্থাপন ও ব্যবস্থাপনা আইন ২০২২ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, জুনের শেষ সপ্তাহের আগেই প্রস্তুত হয়ে যাবে পদ্মাসেতুর কাজ। প্রধানমন্ত্রী সময় দিলে হবে উদ্বোধন। পদ্মাসেতুর টোল যৌক্তিকভাবে নির্ধারিত হয়েছে।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, মন্ত্রিপরিষদের সভায় পদ্মাসেতুর নাম নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। পদ্মাসেতু পদ্মাসেতুর নামেই থাকবে। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী নিজেই তিন থেকে চার দিনের মধ্যে স্পষ্ট করবেন।

বাংলাদেশের কোভিড-১৯ ব্যবস্থাপনায় বিশ্ব ব্যাংক সন্তুষ্ট বলেও এ সময় উল্লেখ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। জানিয়েছেন, এজন্য স্বাস্থ্যখাতে ৯৪০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে সংস্থাটি। বাংলাদেশকে উদাহারণ হিসেবে ধরে পৃথিবীর অন্য দেশেও কাজ করবে বিশ্ব ব্যাংক।

/এমএন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply