‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রদের ভাঙচুর বরদাশত করা হবে না’

|

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্রদের ভাংচুর বরদাশত করা হবে না বলে সতর্ক করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, বিশৃংখলাকারী যেই হোক ব্যবস্থা নেয়া হবে। সেই সাথে শিক্ষকদের মধ্যে বিভেদ বন্ধেরও আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসির বাসভবন ভাংচুরে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ছাত্রলীগের ২৯তম সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতীয় সঙ্গীত আর পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে বিকাল ৪টায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় ছাত্রলীগের ২৯তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন।

এরপর শান্তির প্রতীক বেলুন আর বকুতর উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্মেলন ঘিরে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় ২৫ হাজারেরও বেশি নেতাকর্মী উপস্থিত হন সমাবেশস্থল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। ছিলেন ডেলিগেট আর কাউন্সিলরারাও।

ছাত্রলীগ নেতারা তাদের বক্তব্যে জানান, নতুন নেতৃত্ব বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি শতভাগ আস্থাশীল তারা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ছাত্রলীগের গৌরোবজ্জ্বল ভূমিকার উল্লেখের পাশাপাশি বিভিন্ন ইস্যুতে বিএনপি-জামাত জোটের তীব্র সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিলো বিএনপি।

দেশে শিক্ষার নীতিমালা কেমন হবে তা জানেন উল্লেখ করে ছাত্রলীগের প্রতি বিভিন্ন নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ছাত্রনেতাদেরকে জাতির পিতার দুটি বই পড়তে হবে, সঙ্গে সেই আদর্শকেও বুকে ধারণ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি চান ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব সমঝোতার মাধ্যমে আসুক।

এদিকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-এক উৎক্ষেপণ নিয়ে আশাহত না হওয়ার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।









Leave a reply