ব্যাটে-বলে এবারের আইপিএল কাঁপাচ্ছেন যারা

|

ছবি: সংগৃহীত

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ২০২২ এর গ্রুপপর্ব প্রায় শেষপ্রান্তে। লিগপর্ব শেষে আগামী ২৪ মে থেকে শুরু হবে শেষ চারের লড়াই। সেই দৌঁড়ে গুজরাট টাইটানস, রাজস্থান রয়্যালস, লখনৌ সুপার জায়ান্টস, দিল্লি ক্যাপিটালস ও রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু আছে সুবিধাজনক জায়গায়।

এসব দলগুলোর ভালো অবস্থানের পেছনে আছে দারুণ কিছু ব্যক্তিগত পারফরমেন্স। রাজস্থান রয়্যালস টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও তাদের ব্যাটার জস বাটলার রীতিমতো উড়ছেন। আসরের ৫ সেঞ্চুরির ৩টিই এসেছে বাটলারের ব্যাট থেকে। ছ’শোর ওপরে রান তার, স্ট্রাইক রেট ১৫০ এর কাছাকাছি।

সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের তালিকায় ২য় স্থানে লখনৌর লোকেশ রাহুল। আসরের বাকি দুই সেঞ্চুরি ভারতীয় এই ওপেনারের ব্যাট থেকেই এসেছে। তবে তার রান, গড়, স্ট্রাইক রেট কোনোটিই তুলনীয় নয় বাটলারের সাথে।

তালিকার তিনে দিল্লির ডেভিড ওয়ার্নার। বলতে গেলে দলটির ব্যাটিং একাই টানছেন অস্ট্রেলিয়ান এ ব্যাটার। তার গড় ৫৩ ও স্ট্রাইক রেট দেড়শো’র ওপরে। দুর্দান্ত ফর্মে আছেন এই অস্ট্রেলিয়ান। কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব স্বস্তিতে না থাকলেও হাসছে শিখর ধাওয়ানের ব্যাট। ১৩ ম্যাচে ৪২১ রান করেছেন এই মারকুটে ওপেনার। জানাচ্ছেন ভারতের টি-টোয়েন্টি দলে থাকার জোর দাবি। লখনৌর দিপক হুদা এই তারকাদের মধ্যে বেমানান। তবে দারুণ ধারাবাহিক তিনি। চার হাফ-সেঞ্চুরিতে করেছেন ৪০৬ রান।

ব্যাটারদের মতো বোলিংয়েও সব পরিচিত নাম। এখানে সব লেগস্পিনারদের দাপট। লেগব্রেক গুগলি বোলার যুজবেন্দ্র চাহাল নিয়েছেন সর্বাধিক ২৪ উইকেট। রাজস্থানের সাফল্যের পেছনে এই বোলারের অবদান অনেকটাই।

ব্যাঙ্গালুরুর লেগস্পিনার শ্রীলঙ্কান ওয়ানিদু হাসারাঙ্গার শিকার ২৩ উইকেট। ১৪ গড়, ৮ এর নীচে ইকোনমি তার। তবে তার দলের শেষ চারে খেলার আশা নেই বললেই চলে। একই কথা চলে পাঞ্জাবের দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার কাগিসো রাবাদার ক্ষেত্রেও। ২২ উইকেট নিয়েছেন ১৬ গড়ে। আইপিএলে ডেল স্টেইনের উইকেট শিকারের রেকর্ডকে পেছনে ফেলেছেন রাবাদা।

তবে এবারের আইপিএলে সবচেয়ে আলোচিত নাম উমরান মালিক। ১৩ ম্যাচে ২১ উইকেট তার দখলে। পেস, বাউন্স ও নিয়ন্ত্রণ দারুণ হায়দ্রবাদের এই পেসারের। আছেন ভারতীয় দলে ডাক পাওয়ার অপেক্ষায়। দিল্লির বাহাতি চায়নাম্যান বোলার কুলদীপ যাদবও আছেন দারুণ ফর্মে। তার শিকার সংখ্যা ২০। মুম্বাই ম্যাচের বাধা টপকে শেষ চারে পৌঁছাতে হলে এই স্পিনারের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে দিল্লিকে।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply