তামিম-মুশফিকের ফিরে আসার ইনিংসে টাইগারদের লিড

|

ছবি: সংগৃহীত

আগের দিন তামিম ইকবাল সেঞ্চুরির পেয়েছিলেন ৩৯ মাস পর। আর আজ মুশফিকুর রহিমও স্পর্শ করলেন এই ল্যান্ডমার্ক। আর সেটাও ২৭ মাস অতিক্রান্ত হবার পর। তামিম-মুশফিকের এই ফিরে আসার গল্পের সাথে লিটন-জয়দের দারুণ ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬৮ রানের লিড নিয়েছে বাংলাদেশ। চটগ্রাম টেস্টের ৪র্থ দিনের শেষ সেশনে ৪৬৫ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। ৬৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছে লঙ্কানরা।

আগের দিনের ৩ উইকেটে ৩১৮ রান নিয়ে ব্যাটিং শুরু করেন দুই হাফ-সেঞ্চুরিয়ান মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। এদিন প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে ৫ হাজার রানের কীর্তি গড়েন মুশফিকুর রহিম। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলমান চট্টগ্রাম টেস্টের ৪র্থ দিনের প্রথম সেশনে ব্যক্তিগত ৬৮ রানে পৌঁছানোর সময় এই মাইলফলক অতিক্রম করেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল।

লিটন দাসের ব্যাটিং ছিল বরাবরের মতোই চোখের জন্য প্রশান্তিদায়ক। ছবি: সংগৃহীত

মুশফিক ও লিটনের ১৬৫ রানের জুটি থামে লিটন দাস ৮৮ রান করে মনসংযোগ হারালে। কনকাশন বদলি কাসুন রাজিথার অফস্ট্যাম্পের বাইরের বল তাড়া করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ৮৮ রানে সাজঘরে ফেরেন লিটন দাস। ১৬৫ রানের এই জুটি ভাঙার পর ক্রিজে আসেন ১৩৩ রানে রিটায়ার্ড হার্ট হওয়া তামিম। কিন্তু মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলেই রাজিথার অ্যাঙ্গেলে ভেতরে ঢুকে যাওয়া ডেলিভারিতে বোল্ড হন তামিম।

তারপর কিছুটা দ্রুত রান তোলা সাকিব আল হাসান কাটা পড়েন ২৫ রানে। তবে ঠিকই ক্যারিয়ারের ৮ম সেঞ্চুরি তুলে নেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম। ২৭ মাস পর সেঞ্চুরি পেলেন মুশফিক। মিস্টার ডিপেন্ডেবল ২৭০ বল খেলেছেন শত রানের মাইলফলকে পৌঁছাতে। টেস্ট ক্রিকেটে এটি মুশফিকের ৮ম এবং শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২য় সেঞ্চুরি। সেঞ্চুরির পর ইনিংস লম্বা করতে পারেননি মুশফিক, ফেরেন ১০৫ রানে। এরপর তাইজুলের ব্যাট থেকে আসে মূল্যবান ২০ রান। লঙ্কানদের পক্ষে পেসার কাসুন রাজিথা ৪ এবং আসিথা ফার্নান্দো নেন ৩ উইকেট।

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply