স্থানীয় বাজারেও চড়া আটা-ময়দার দাম

|

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পাশাপাশি স্থানীয় বাজারে বেড়েছে আটা-ময়দার দামও। সপ্তাহের ব্যবধানে খোলা আটার দাম কেজিতে বেড়েছে অন্তত ৪ টাকা। ময়দার দর বেড়েছে আরও বেশি। খুচরা দোকানিরা বলছেন, দেশের বাজারে দাম বৃদ্ধির অন্যতম কারণ সিন্ডিকেট। অন্যদিকে আমদানিকারকরা জানিয়েছেন, ডলারের ঊর্ধ্বগতির কারণে পূর্বের এলসি’র বিপরীতে পণ্য আমদানি করা নিয়ে উদ্বিগ্ন তারা।

বলা হচ্ছে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব বাংলাদেশে এখনো অব্যাহত। তবে ডলারের ঊর্ধ্বমুখী দামে ভারত থেকে ১২ জুনের পূর্বের এলসি করা পণ্য আমদানি করতেও আতঙ্কিত বোধ করছেন আমদানিকারকরা। ১২ জুনের আগের যে গমগুলোর এলসি করা আছে, সেগুলো ভারত সরকার দিলে কিছুটা সাময়িক সমাধান মিলবে বলেও জানান তারা।

খুচরা বাজারে প্রতি কেজি খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪২ টাকা। আর প্যাকেটজাত ৫০ থেকে ৫২ টাকা। অন্যদিকে খোলা ময়দা বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৬২ টাকায়। প্যাকেট জাত ৬৮ থেকে ৭০ টাকায়। সপ্তাহের ব্যবধানে আটার দাম কেজিতে বেড়েছে ৪টাকা ও ময়দায় বেড়েছে ৬ টাকা। পাইকারি পর্যায়ে দাম বেড়েছে বলছেন খুচরা দোকানীরা।

আটা-ময়দার বাজারে স্বস্তি ফিরিয়ে আনতে নিয়মিত তদারকি কার্যক্রম জোরদারের দাবি জানিয়েছেন ক্রেতারা। দেশে গমের চাহিদা বছরে ৭০ লাখ টন। উৎপাদন মাত্র ১২ লাখ টন। প্রতি বছর বাড়ছে আমদানি নির্ভরতা। আর তাতে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে আটা-ময়দার দাম।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply