ইউরোপ ‘অর্থনৈতিক আত্মহত্যা’ করতে বাধ্য হবে: পুতিন

|

ভার্চুয়াল বৈঠকে জ্বালানি বিষয়ক প্রধান এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

মস্কোর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ফলে ইউরোপ ‘অর্থনৈতিক আত্মহত্যা’ করতে বাধ্য হবে বলে মন্তব্য করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। খবর আলজাজিরার।

মঙ্গলবার (১৭ মে) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে আলজাজিরা জানায়, রুশ জ্বালানির ওপর আরোপিত পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার প্রভাব নিয়ে দেশটির জ্বালানি বিষয়ক প্রধান এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা সময় এসব কথা বলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

বৈঠকে পুতিন বলেন, রাশিয়ার খনিজ তেল খাত একটি টেকটোনিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এখন।রুশ শক্তি সরবরাহ পর্যায়ক্রমে বন্ধ করলে ইউরোপ শুধুমাত্র নিজেদের ক্ষতিই করবে। তাদের এসব পদক্ষেপের জন্য জ্বালানীর দাম বেড়ে যাওয়া এবং উচ্চ মূল্যস্ফীতি দেখতে পাবে।

পুতিনের অভিযোগ, ইউক্রেন অভিযানের পর যে অবরোধ পশ্চিমারা দিয়েছে তা সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রনোদিত। কিছু দেশ রুশ জ্বালানির ওপর ব্যাপকভাবে  নির্ভরশীল, তাদের জন্য রুশ তেলের ওপর অবরোধ মানা কঠিন হবে।
 
এমতাবস্থায়, বন্ধুত্বপূর্ণ দেশগুলোতে তেল ও গ্যাস সরবরাহ পুনঃনির্দেশিত করার আশা করছেন পুতিন। কারণ, ইউরোপীয় দেশগুলো রাশিয়ান শক্তি থেকে নিজেদের মুক্ত করার উপায় খুঁজছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ইউরোপের বিশৃঙ্খল পদক্ষেপে শুধু যে ইউরোপের অর্থনীতিই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এমন না বরং সেই সঙ্গে রাশিয়াকেও তেল ও গ্যাস থেকে রাজস্ব বৃদ্ধির দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply