‘আপনারা যা করার করেন’, সাংবাদিকের ওপর চড়াও হওয়া প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা

|

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা পুতুল চন্দ্র রায়। ফাইল ছবি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) ছাত্রলীগের কর্মীদের মারামারির ঘটনা ভিডিও করতে গেলে বাংলাদেশ টাইমসের সাংবাদিক শাফাত রহমানের ওপর চড়াও হওয়ার অভিযোগ আসে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের স্কুলছাত্র বিষয়ক সম্পাদক পুতুল চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে পুতুল বলেন, এ বিষয়ে আমি কথা বলতে চাই না। আপনারা যা করার করেন।

ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার (১৭ মে) বিকাল চারটায় ছাত্রলীগের শোভাযাত্রা মধুর ক্যান্টিন থেকে টিএসসি পৌঁছালে। এ সময় সংঘর্ষে জড়িয়ে যান ছাত্রলীগের কিছু কর্মী। সেই সংঘর্ষেরই ভিডিও করছিলেন ভুক্তভোগী সাংবাদিক শাফাত। সে সময় পুতুল ঐ সাংবাদিকের দিকে তেড়ে যান।

ঘটনার বর্ণনায় ভুক্তোভোগী শাফাত রহমান বলেন, আমি মারামারির ঘটনার ভিডিও করতে গেলে পুতুল চন্দ্র রায় আমাকে মারার জন্য তেড়ে আসেন এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন। তার সঙ্গে থাকা কয়েকজন তাকে সরিয়ে নিতে চাইলেও তিনি বলেন, ও আমাকে কী করবে।

যমুনা টেলিভিশনের কাছে এই ঘটনাটির একটি ভিডিও ফুটেজ সংরক্ষিত আছে। সেখানে দেখা যায়, অভিযুক্ত পুতুল শাফাত রহমানকে মারার জন্য তেড়ে আসলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী জহির শাফাত রহমানকে একপাশে নিয়ে এসে মিটমাটের চেষ্টা করেন। এ সময় জহির শাফাতকে বলেন- ‘বাদ দেন, ভাই। সে ভুল করে ফেলেছে।’ সে সময়ও পুতুল চন্দ্র শাফাতকে পেছন থেকে গালাগাল করতে থাকেন।

বিষয়টি নিয়ে জানতে পুতুল চন্দ্র রায়কে ফোন করা হলে যমুনা টেলিভিশনকে তিনি বলেন, মিটিং মিছিলে একটু মারামারি, ধাক্কাধাক্কি হবেই। আমি তাকে (শাফাত রহমান) বলেছি, এটি একটি সাধারণ ঘটনা। আমরা এটার সমাধান করতেছি। তুমি এটা ভিডিও করতেছো কেন? এই কথা বলা যদি অপরাধ হয়, তাহলে অপরাধই। আপনারা যা করতে চাচ্ছেন করেন। আমি তাকে নাকি মারতে চাইছি। আমি তার কাছাকাছিই যাইনি। এই বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আমি কথা বলতে চাই না। আপনারা যা করার করেন।

বিষয়টি নিয়ে জানতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়কে ফোন করা হলেও রিসিভ করেননি তিনি।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply