বেনাপোল বন্দর দিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য পরিবহন বন্ধ

|

ফাইল ছবি

বেনাপোল প্রতিনিধি:

দেশের বৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোলে প্রয়োজনীয় ক্রেন, ফর্কলিফটের অভাবে মালামাল লোড- আনলোড ব্যাহত হওয়ার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১৭ মে) থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য মালামাল পরিবহন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতি।

দীর্ঘদিন ধরে বেনাপোল বন্দরের অধিকাংশ ক্রেন ও ফর্কলিফট অকেজো অবস্থায় পড়ে থাকায় মালামাল লোড-আনলোড মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছিল। বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন সংগঠনসহ মালামাল পরিবহনকারী সংগঠন বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতি নতুন ক্রেন ফর্কলিফটের দাবিতে আল্টিমেটাম দিয়ে আসছিল বন্দর কর্তৃপক্ষকে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন গাজী। তিনি জানান, বেনাপোল বন্দর দেশের বৃহত্তম স্থল বন্দর। অথচ বিভিন্ন প্রকল্পের ভারি পণ্য লোড- আনলোডের জন্য পর্যাপ্ত ক্রেন, ফর্কলিফট প্রভৃতি নেই। আর যেগুলো আছে তার মধ্যে অধিকাংশই দীর্ঘদিন ধরে অচল। ফলে বন্দর থেকে মালামাল লোড-আনলোড করা সম্ভব হচ্ছিল না। এছাড়াও, ক্রেন ফর্কলিফটের চালকরাও অদক্ষ।

বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদারকে চিঠি দিয়ে বিষয়টি জানালেও তিনি বিষয়টি আমলে নেননি। তাছাড়া পুরাতন ক্রেন ফর্কলিফট দিয়েই বন্দরের মালামাল লোড আনলোড করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। এছাড়া নতুন কোনো ক্রেন ফর্কলিফট নেই বন্দর কর্তৃপক্ষের।

জানা গেছে, বর্তমানে বন্দরের ৬টি ক্রেনের মধ্যে ৩টি সচল আছে। ১০টি ফর্কলিফট এর মধ্যে ৬টি সচল আছে।

বেনাপোল স্থলবন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) আব্দুল জলিল জানান, বেনাপোল বন্দরে ক্রেন ও ফর্ক লিফট সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান বসাক বেঙ্গল এন্টারপ্রাইজকে ক্রেন-ফর্কলিফট মেরামতসহ নতুন ক্রেন ও ফর্কলিফট সরবরাহের জন্য বলা হয়েছে। আশা করি এ সমস্যা দ্রুত সমাধান করা হবে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি মেট্রোরেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প, পাওয়ার গ্রিডসহ বিভিন্ন প্রকল্পের মালামাল আমদানি হওয়ায় এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply