পশ্চিমারা যুদ্ধ চাপিয়ে দিয়েছে, যার পরিণাম ভোগ করবে সবাই; হুঁশিয়ারি রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

|

ছবি: সংগৃহীত

রাশিয়ার ওপর হাইব্রিড যুদ্ধ চাপিয়ে দিয়েছে পশ্চিমারা; যার পরিণাম ভোগ করবে সবাই। শনিবার (১৪ মে) এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করলেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ।

ল্যাভরভের ভাষ্য, বিরোধীদের বরাবরই শাস্তি দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু, রাশিয়ার মতো পাল্টা যুদ্ধের সাহস কেউ করেনি। পরিস্থিতির সাথে পাল্টাচ্ছে আমাদের রণকৌশল। বলা মুশকিল যুদ্ধ কতদিন স্থায়ী হবে। কারণ, পশ্চিমারা সংঘবদ্ধভাবে আমাদের ওপর চাপিয়ে দিয়েছে হাইব্রিড যুদ্ধ। তাই, প্রত্যেককে ভোগ করতে হবে পরিণাম। খবর রয়টার্সের।

এদিকে, ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দোনবাসে অব্যাহত রুশবহরের হামলা। পুতিন প্রশাসনের দাবি, কয়েকদিনের অভিযানে প্রাণ হারিয়েছেন শতাধিক ইউক্রেনীয় সেনা। ধ্বংস ২১টির মতো যুদ্ধযান এবং সামরিক সরঞ্জাম।

এদিকে, ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে রুশ সেনারা কোনঠাসা; এমনটাই দাবি ইউক্রেনের। শনিবারও উদ্ধার হয়েছে ৪১টি মরদেহ। প্রেসিডেন্ট জানান, খুব শিগগিরই বিতাড়িত হবে দখলদার বাহিনী।

জেলেনস্কি বলেন, দোনবাস অঞ্চলের পরিস্থিতি খুব খারাপ। যেকোনো মূল্যে জয় পেতে মরিয়া রুশ সেনাবহর। ৮০ দিন যাবত এলাকাটি অবরূদ্ধ রেখে আগ্রাসন চালানো স্রেফ পাগলামি। দোনবাস, খেরসন ও খারকিভে প্রতিরোধ গড়ে তোলা প্রত্যেকের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। ধীরে ধীরে ইউক্রেনের ভূখণ্ড থেকে বিতাড়িত করা হচ্ছে দখলদারদের।

এর মাঝেই, জার্মান রাজধানীতে শুরু হয়েছে ন্যাটো সম্মেলন। আসতে পারে সুইডেন ও ফিনল্যান্ডকে নতুন সদস্য হিসেবে নির্বাচনের ইতিবাচক ঘোষণা। অবশ্য, এ ব্যাপারে কিছুটা নাখোশ তুরস্ক।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু বলেছেন, ফিনল্যান্ড ও সুইডেন আমাদের মিত্র তাতে সন্দেহ নেই। কিন্তু, সমস্যা হলো ন্যাটোর সদস্য হতে চাওয়া দেশদুটি সন্ত্রাসী সংগঠন পিকেকে ও ওয়াইপিজিকে খোলাখুলি সমর্থন করে। সন্ত্রাসীরা প্রতিদিন আমাদের সেনাবহর আর সেনা সদস্যদের ওপর হামলা চালায়। সে কারণেই, বেশিরভাগ তুর্কি সামরিক জোটে দেশগুলোর অর্ন্তভূক্তির ব্যাপারে নাখোশ।

রাশিয়াও আগেই সাফ জানিয়েছে, ন্যাটোতে যোগদান হবে সুইডেন ও ফিনল্যান্ডের ঐতিহাসিক ভুল। প্রথমেই নর্ডিক দেশগুলোয় বন্ধ করা হবে বিদ্যুৎ সরবরাহ। কয়েকধাপে আসবে বাদবাকি নিষেধাজ্ঞা।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply