ঘূর্ণিঝড় আসানির প্রভাবে ফসলভরা মাঠ ভেসেছে পানিতে

|

আসানির প্রভাবে পানিতে নষ্ট হয়েছে ফসল।

ঘূর্ণিঝড় আসানির প্রভাবে স্বপ্নভঙ্গ গোপালগঞ্জ ও নওগাঁর বোরো চাষিদের। ধান ক্ষেতে জমেছে বৃষ্টির পানি, নষ্ট হয়েছে ফসলও। বরগুনায় বিপাকে পড়েছেন তরমুজ ও মুগ ডাল চাষীরা। বৃষ্টির পানিতে ডুবে যাচ্ছে তরমুজ। দ্রুত ফসল কাটার পাশাপাশি নানা পরামর্শ দেয়া হচ্ছে কৃষি বিভাগ থেকে।

সবাই যখন ফসল ঘরে তোলার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তখনই এসেছে এই বড় ধাক্কা। ফসল কাটার আগেই বিভিন্ন বিলের জমিতে বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে কৃষকের ফসল নষ্ট হয়েছে। কৃষি বিভাগ পরামর্শ দিয়েছেন, পরিপক্ক ফসল মাঠ থেকে সংগ্রহ করে ঘরে তোলার জন্য। নিরুপণ করা হচ্ছে কৃষকের ক্ষতির পরিমাণ।

বরগুনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক আবু সৈয়দ মোঃ জোবায়দুল আলম বলেন, জোয়ারের পানি ঢুকে ফসলের ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতি নিরুপণের জন্য আমরা উপ-সহকারী কৃষি অফিসারবৃন্দকে দায়িত্ব দিয়েছি। অন্যদিকে, গোপালগঞ্জের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক অরবিন্দ কুমার রায় বলেন, যে সমস্ত কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বা হতে পারেন তাদের একটি তালিকা তৈরি করে সহায়তা করার প্রতিশ্রতি রইলো।

চলতি মৌসুমে নওগাঁয় বোরো ধানের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১২ লাখ মেট্রিক টন। এ বছর গোপালগঞ্জে ৮০ হাজার ৫২০ হেক্টর জমিতে কৃষকরা বোরা আবাদ করেছিল।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply