জয়পুরহাটে একটি পরিবারের সবাই মানসিক ভারসাম্যহীন

|

একই পরিবারের ৫ সদস্য, সবাই মানসিক রোগী। শুনতে একটু অবাক মনে হলেও, জয়পুরহাটের কিনাপাড়ায় একটি পরিবারের চিত্র এমনই। প্রতিবেশীরা সাহায্য করলে খাবার জোটে না হলে উপোস। এই অবস্থা চলছে প্রায় দেড়যুগ ধরে। সরকারি সাহায্য এবং চিকিৎসা সুবিধা পেলে পরিবারটির পরিস্থিতি পাল্টাতে পারে বলে অভিমত স্থানীয়দের।

যুবক হাবিবুরের মতো মানসিক ভারসাম্যহীন তার মা মরিয়ম, তিন বোন রহিমা, রুমানা ও রূপালী। অর্থাৎ একই পরিবারের ৫ জন সদস্যের সবার অবস্থা একই। জয়পুরহাটের কিনাপাড়া এলাকায় বসবাস তাদের। গ্রামবাসীরা নিজ উদ্যোগে তাদের গড়ে দিয়েছেন একটি বাড়ি।

মা-ও স্বাভাবিক ছিলেন না। জন্ম থেকেই অসুস্থ ছিল ভাই-বোন। ধীরে ধীরে তা বাড়তে থাকে। ৩ বোনের বিয়ে হলেও টেকেনি সংসার। হতদরিদ্র পরিবারটির সামর্থ্য নেই চিকিৎসা করানোর। জয়পুরহাট উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম সোলায়মান আলী বলছেন, অসহায় পরিবারটিকে ব্যক্তিগতভাবে সাহায্য করবেন তিনি। সবার চিকিৎসার জন্য জয়পুরহাটে ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ করবেন বলেও জানালেন তিনি।

পৌর কাউন্সিলর পাপিয়া সুলতানা বলছেন, উপযুক্ত চিকিৎসা পেলে পরিবারটির সুস্থতা সম্ভব। সরকারের কাছেও পরিবারটির জন্য সাহায্য চান তিনি। ডাক্তাররাও বলছেন, উপযুক্ত চিকিৎসা পেলে পরিবারটির সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

পাঁচজনের মাঝে শুধুমাত্র মরিয়মের ভোটার আইডি কার্ড থাকায় তার বিধবা ভাতার ব্যবস্থা হয়েছে।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply