কবর থেকে উঠে আসার গুজব: গাইবান্ধার সেই বৃদ্ধার পরিচয় শনাক্ত, আশ্রয়দাতার কাছে হস্তান্তর

|

সেই বৃদ্ধাকে আশ্রয়দাতার কাছে হস্তান্তর।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

অবশেষে গাইবান্ধায় দাফনের ৯ মাস পর কবর থেকে উঠে আসার গুজবে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করা সেই বৃদ্ধা নারীর পরিচয় মিলেছে। তার প্রকৃত নাম শেফালী সরদার। খুলনার দৌলতপুরের শেফালী সরদার একজন প্রতিবন্ধী। তিনি মানষিক ভারসাম্যহীন হওয়ায় পথ হারিয়ে দৌলতপুর থেকে ট্রেনে করে গাইবান্ধায় চলে আসেন। পরিচয় মেলার পর সদর থানা পুলিশ ৭৫ বছর বয়সী শেফালী সরদারকে দৌলতপুর থেকে আসা আশ্রিতা সুফিয়া বেগমের কাছে হস্তান্তর করেছে। তার কাছেই আশ্রিত ছিলেন তিনি।

শুক্রবার (১৩ মে) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. ওয়াহেদুল ইসলাম। তিনি জানান, দৌলতপুরের মৃত বাচা সরদারের মেয়ে শেফালী সরদারের কোনো আত্মীয়-স্বজন নেই। দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে দৌলতপুরের বাসিন্দা সুফিয়া বেগমের আশ্রয়ে থাকতেন তিনি। পুলিশ হেফাজতে বৃদ্ধার থাকার খবর পেয়ে সুফিয়া বেগম শুক্রবার সকালে সদর থানায় এসে তাকে শনাক্ত করেন। এ সময় সুফিয়া বেগম ওই বৃদ্ধাকে প্রতিবন্ধী আখ্যা দিয়ে সরকারি একটি প্রতিবন্ধী কার্ড প্রর্দশন করেন। পরে সত্যতা যাচাই করে সুফিয়া বেগমের কাছে বৃদ্ধাকে হস্তান্তর করা হয়।

এর আগে, বুধবার (১১ মে) দুপুরে গাইবান্ধার পৌর এলাকার ডেভিট কোম্পানি পাড়ার একটি বাড়ি থেকে ওই বৃদ্ধা নারীকে উদ্ধার করেন সদর থানা পুলিশ। সম্প্রতি ট্রেনে করে ওই বৃদ্ধা গাইবান্ধা স্টেশনে এসে আশ্রয় নেন। ঘটনাচক্রে শেফালীকে দেখতে ৯ মাস আগে মারা যাওয়া ডেভিট কোম্পানি পাড়ার মৃত বাহার শেখের স্ত্রী বাছিরন বেওয়ারের (৮০) মতো হওয়ায় বাছিরন কবর থেকে উঠে এসেছেন বলে গুজব রটে। এ সময় তাকে এক নজর দেখতে ভিড় জমায় শতশত উৎসুক জনতা। অবস্থা বেগতিক দেখে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply