রুশ সেনাবাহিনীর বেসামরিক মানুষ হত্যার সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ্যে

|

রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধে শুরু থেকেই পুতিন বাহিনীর বিরুদ্ধে বেসামরিক নাগরিক হত্যার অভিযোগ ছিল। এবার রুশ সেনাদের গুলিতে নিরস্ত্র দুই ইউক্রেনীয় নিহত হওয়ার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ প্রকাশ করা হলো। আইনজীবীদের মতে, এই ফুটেজ রুশ সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ তদন্তে শক্ত প্রমাণ। তবে, শুরু থেকেই বেসামরিক নাগরিক হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে রাশিয়া।

ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, একটি ভবনের মূল ফটক ভাঙার চেষ্টা করছে রুশ সেনারা। ভেতর থেকে নিরাপত্তাকর্মীরা এগিয়ে এলে পিছু হটে তারা। কিছুক্ষণ পর দুজন রুশ সেনা ফের ফটকের সামনে এসে গুলি চালায়। এতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে দুইজন বেসমারিক ইউক্রেনীয়।

বেশকয়েকটি পশ্চিমা গণমাধ্যম প্রকাশ করেছে কিয়েভের একটি সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা ওই ফুটেজ। এরই মধ্যে যুদ্ধাপরাধের প্রমাণ হিসেবে ভিডিওটি পর্যালোচনা করছেন ইউক্রেনের আইনজীবীরা।

এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ দুইজনেরই মৃত্যু হয়। এর মধ্যে একজনের নাম লিওনিড, যিনি ওই ভবনের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন। আরেকজনও বেসামরিক নাগরিক, তবে তার পরিচয় প্রকাশ করেনি পরিবার।

রুশ হামলায় নিহত লিওনিডের মেয়ে ইউলিয়া বলেন, আমার বাবা একজন বেসামরিক নাগরিক ছিলেন। ৬৮ বছর বয়সী নিরস্ত্র একজনকে তারা হত্যা করেছে। বাবার মৃত্যুর এ ভিডিও সহ্য করার ক্ষমতা আমার নেই। আর তাই আমি এটি দেখিনি। তবে, এ ভিডিও সংরক্ষণ করে রেখে দিয়েছি। আমার সন্তানদের আমি এটা দেখাবো, যাতে তারা ভুলে না যায় রুশ বাহিনী কতটা বর্বর ছিল।

সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ পাওয়ার পর জোরালো হয়েছে রাশিয়ার বিরুদ্ধে বেসামরিক নাগরিক হত্যার অভিযোগ। এর আগে জাতিসংঘ জানিয়েছে, রুশ আগ্রাসনে প্রাণ হারিয়েছে তিন হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক। যদিও বরাবরই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে রাশিয়া।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply