নিহত আলজাজিরার সাংবাদিক শিরিনকে শ্রদ্ধা জানাতে মানুষের ঢল

|

ছবি: সংগৃহীত

আল-জাজিরার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন হাজারো মানুষ। আজ শুক্রবার বাদ জুমা জানাজা শেষে তাকে জেরুজালেমে দাফন করা হবে। সংবাদ সংগ্রহের সময় ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে তিনি নিহত হন। খবর এএফপির।

গতকাল বৃহস্পতিবার শিরিনের মরদেহ পশ্চিম তীরের রামাল্লা শহরে আনা হয়। এ সময় তাকে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানাতে শহরে ভিড় করেন হাজারো মানুষ।

এদিকে, জেনিন শরণার্থীশিবিরে সংঘর্ষের সময় আবু আকলেহর মৃত্যুর দায় ফিলিস্তিনিদের ওপর চাপিয়েছে ইসরায়েল। যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এ ঘটনার যৌথ তদন্তের কথা বলা হয়েছে। তবে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ ইসরায়েলের সঙ্গে যৌথ তদন্তে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

রামাল্লায় ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের কার্যালয় প্রাঙ্গণে শিরিনকে শ্রদ্ধা জানাতে কূটনীতিক ও রাজনীতিবিদেরা উপস্থিত ছিলেন। ফিলিস্তিনি পতাকায় মোড়ানো তার কফিন শহরের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় হাজারো মানুষ রাস্তায় দাঁড়িয়ে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানান।

মাহমুদ আব্বাস বলেন, এই অপরাধের শাস্তি হওয়া উচিত। শিরিন আবু আকলেহর মৃত্যুর জন্য ইসরায়েল সম্পূর্ণভাবে দায়ী। তার মৃত্যুর যৌথ তদন্তের জন্য ইসরায়েলি প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন তিনি।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট বুধবার বলেন, শিরিন সম্ভবত ফিলিস্তিনিদের এলোপাথাড়ি গুলিতে নিহত হয়েছেন। দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্তজ বলেন, ইসরায়েলের দিক থেকে সম্ভবত ফিলিস্তিনিরা গুলি ছুড়েছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি।

আল-জাজিরার খবরে বলা হয়, আবু আকলেহর হত্যাকাণ্ড ফিলিস্তিন ও আরব বিশ্বে শোকের ছায়া ফেলেছে। ৫১ বছর বয়সী আবু আকলেহ আল-জাজিরা আরবি টেলিভিশনের একজন জ্যেষ্ঠ সংবাদদাতা ছিলেন। এই চ্যানেল চালু হওয়ার পরের বছরেই ১৯৯৭ সালে তিনি এতে যোগদান করেছিলেন।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply