সুন্দরবন ও সিলেটের স্বাদুপানির জলাভূমি রক্ষায় শুরু ‘প্রতিবেশ’ এর যাত্রা

|

রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আবাসভূমি, ইউনেস্কো ঘোষিত ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন, এবং বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিম অংশে সিলেটের সীমান্তবর্তী অঞ্চলের জীববৈচিত্র্যময় স্বাদুপানির জলাভূমিকে প্রাধান্য দিয়ে যাত্রা শুরু করেছে ‘প্রতিবেশ’ নামক নতুন এক প্রকল্পের যাত্রা। এই দুই এলাকার পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য রক্ষার মাধ্যমে স্থানীয় লোকজনের জীবন ও জীবিকার উন্নয়নে ওই প্রকল্প কাজ করবে। এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইউএসএআইডি দুই কোটি ডলার সহায়তা দিচ্ছে।

মঙ্গলবার (১০ মে) রাজধানীর একটি হোটেলে প্রকল্পটির উদ্বোধন করা হয়। পরিকল্পনা মন্ত্রী এম.এ. মান্নান এবং ইউএসএআইডি’এর ডেপুটি এডমিনিস্ট্রেটর, পলিসি এন্ড প্রোগ্রামিং-এর ইসোবেল কোলমেন যৌথভাবে ইউএসএআইডি ইকোসিস্টেমের ২ কোটি ডলারের নতুন পাঁচ বছর মেয়াদী প্রকল্প প্রতিবেশ এর উদ্বোধন করেন। এটি বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ বনাঞ্চল এবং জলাভূমি অঞ্চলগুলোকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষায় কাজ করবে। এখানে আরো উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয় ও ভূমি মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ বন অধিদফতর, মৎস্য অধিদফতর, এবং পরিবেশ অধিদফতরের কর্মকর্তাগণ।

বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ বনাঞ্চল ও জলাভূমি অঞ্চলগুলোকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষায় এই প্রকল্প কাজ করবে বলে জানান ইউএসএআইডির ডেপুটি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর (পলিসি অ্যান্ড প্রোগ্রামিং) ইসোবেল কোলম্যান। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশ সরকার যৌথভাবে সামনের দিনগুলোতে আরও কাজ করবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আমাদের সবাইকেই পরিবেশ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। জাতীয় সম্পদ রক্ষা করে আগামী প্রজন্মের কাছে নিয়ে যেতে হবে। যারা আমাদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছে, তারা আমাদের বন্ধু। আমরা তাদের স্বাগত জানাই। কিন্তু কাজটা আমাদের করতে হবে।

জানানো হয়, প্রকল্পটির আওতায় জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কৃষিপদ্ধতি কাজে লাগানো হবে। বনজীবীদের ব্যবসায়িক উদ্যোগে সহায়তা দেয়া হবে। আয় ও জীবিকার জন্য বন থেকে প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে আনা হবে। এ জন্য স্থানীয় লোকজনকে দীর্ঘ মেয়াদে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় সক্ষম করে তুলতে সাহায্য করা হবে।

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply