স্ত্রীর অত্যাচারে স্বামীর আত্মহত্যার অভিযোগ

|

স্ত্রীর অত্যাচার সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের দ্বৈত নাগরিক শেখ সোয়েব সাজ্জাদ। এমন অভিযোগ করেছেন সাজ্জাদের পরিবারের লোকজন। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পলাতক সাজ্জাদের স্ত্রী সাবরিনাসহ নির্যাতনকারীদের সাজা চান সাজ্জাদের বাবা-মা।

জানা গেছে, দশ বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান শেখ সোয়েব সাজ্জাদ, নাগরিকত্বও নেন দেশটির। আর বনানী ডিওএইচএস-এর একটি বাসা থেকে সোয়েব সাজ্জাদের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয় গত ৩০ এপ্রিল। এ ব্যাপারে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা দায়ের করে সাজ্জাদের পরিবার।

মামলার বাদী ও সাজ্জাদের বড় ভাই সোহেল সাজ্জাদ আহমেদ জানান, তাকে এমন মানসিক অত্যাচারে রাখতো যে সে কখনও মুখ ফুটে কাউকে কিছু বলতে পারতো না। আমি তাকে কয়েকবার জিজ্ঞাসা করেছি তোমার কোনো সমস্যা হচ্ছে কিনা, সে কোনো জবাব দিতো না।

মামলার এজাহারে বলা হয়, স্ত্রী সাবরিনা ও তার শ্বশুরবাড়ির লোকজনের অত্যাচারে আত্মহননের পথ বেছে নেন সাজ্জাদ। বিষয়টি আমেরিকান দূতাবাসকেও অবহিত করার কথা নিশ্চিত করেছে তার পরিবার।

ক্যান্টনমেন্ট জোনের এডিসি ইফতেখাইরুল ইসলাম জানান, মামলার যে দ্বিতীয় আসামি কাজী ফাহাদ আমরা তাকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করেছি। তার পাঁচ দিনের রিমান্ডও চেয়েছিলাম। আদালত জেল গেটে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন। সেই আদেশের কপিটি আসার পর আমরা অভিযোগকারীদের সাথে কথা বলবো। আর এ মামলার আরেকজন আসামি রয়েছে তাকেও গ্রেফতার করতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছি।

সাজ্জাদের পরিবারের অভিযোগ, কাজী ফাহাদ নামের এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ার জেরে সাজ্জাদের ওপর নানা ধরনের নির্যাতন করতেন স্ত্রী সাবরিনা।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply