চট্টগ্রামে বিয়ের ৭ মাস না পেরোতেই ভোল পাল্টালো ছেলে, ত্যাজ্য করলেন বাবা

|

আবদুল আউয়াল কর্তৃক তার একমাত্র ছেলেকে ত্যাজ্য ঘোষণা নোটিশ।

চট্টগ্রাম ব্যুরো:

৭৯ লাখ টাকা খরচ করে একমাত্র ছেলেকে বিয়ে করিয়েছিলেন, কিন্তু সেই বিয়ের ৭ মাস না পেরোতেই ছেলেকে ত্যাজ্য ঘোষণা করলেন পিতা। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামে। ছেলেকে ত্যাজ্য ঘোষণা সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে একাধিক পত্রিকায়।

হতভাগ্য বাবার নাম আবদুল আউয়াল। তিনি খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ী। মেসার্স আবদুল আউয়াল এবং মেসার্স ইমন ট্রেডিং নামে দুটি আমদানি-রফতানি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী তিনি। বসবাস চট্টগ্রাম মহানগরীর বাকলিয়া এলাকায়, তারই একমাত্র ছেলে আবদুল আজিজ ইমন।


পত্রিকায় দেয়া বিজ্ঞপ্তিতে আবদুল আউয়াল উল্লেখ করেন, বিয়ের আগ পর্যন্ত ছেলে ইমন ভদ্র, নম্র ও অমায়িক ছিল। ৭৯ লাখ টাকা খরচ করে ২০২১ সালের ১৫ অক্টোবর ইমনকে বিয়ে করান তিনি। তিনটি ক্লাবে ধুমধাম করে বিয়ের অনুষ্ঠান হয়। পাত্রীর নাম জোবাইদা নিসা (জয়া)। বন্দর থানাধীন মৌলভী হাশেম বাড়ির ফেরদৌস আলমের মেয়ে। নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবার, মেয়ের পরিবারের আর্থিক অসঙ্গতির কারণে বিয়ের সব খরচ বহন করেন ইমনের বাবা আবদুল আউয়াল।

বিজ্ঞপ্তিতে তিনি উল্লেখ করেন, বিয়ের পর থেকে পাল্টে যেতে থাকে ইমনের আচরণ। বাবা মা’র অবাধ্য হওয়া, সবার সাথে দুর্ব্যবহার চরমে ওঠে তার। তার অভিযোগ, স্ত্রী এবং শ্বশুর-শ্বাশুড়ির প্ররোচনায় বাবার সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ঘর-বাড়ি, সব সম্পত্তি লিখে দেয়ার জন্য বাবাকে চাপ দিতে থাকেন ইমন। না দিলে উশৃঙ্খল প্রকৃতির বন্ধুদের সাথে নিয়ে বাবাকে হত্যা এবং মাকে জিম্মি করে প্রয়োজনে সম্পত্তি দখল করে নেয়ার হুমকিও দেয় ইমন।

এ নিয়ে তাদের পারিবারিক অশান্তি চরমে ওঠে। এক পর্যায়ে গত ২৫ এপ্রিল মাকে গালিগালাজ করে ঘর থেকে ৪০ ভরি স্বর্ণ এবং ১০ লাখ টাকা নিয়ে স্ত্রীসহ বেরিয়ে যায় ইমন।

ক্রমাগত তার উশৃঙ্খল আচরণ ও অশালীন ব্যবহারে ক্ষুব্ধ হয়ে এবং ব্যবসায়িক সুনাম ক্ষুণ্ন হওয়ায় ছেলেকে ত্যাজ্য ঘোষণা করেন ব্যবসায়ী আবদুল আউয়াল। কোনো স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি, ব্যবসা-বাণিজ্য, বাড়ি-ভিটা কিছুই ছেলে পাবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি। জানান তার মৃত্যুর পরও এ ঘোষণা বলবৎ থাকবে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply