স্বামীকে খুন করে মোরশেদা নিজেই থানায় গিয়েছিলেন অভিযোগ করতে

|

গাজীপুর প্রতিনিধি:

গাজীপুরের টঙ্গীতে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রীর বিরুদ্ধে। সোমবার (৯ মে) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পূর্ব আরিচপুর ভুইয়া পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খুনের পর অভিযুক্ত স্ত্রী নিজেই থানায় গিয়ে নিহতের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তোলেন। তবে পুলিশের সন্দেহ হলে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় এবং মোরশেদাকে আটকে রাখে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (দক্ষিণ) অপরাধ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ইলতুৎ মিশ বলেন, পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সোমবার সকালে স্বামী ফয়সালের সঙ্গে মোরশেদার ঝগড়া শুরু হয়। ঝগড়া চলাকালীন মোরশেদা ঘরে থাকা মসলা বাটার শিল দিয়ে ফয়সালের মাথায় আঘাত করেন এবং তার গলায় গামছা পেঁচিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করেন। একপর্যায়ে মোরশেদা নিজেই থানায় গিয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ আনেন।

বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হলে মোরশেদাকে নিয়ে তাদের ভাড়া বাসায় যায় পুলিশের একটি দল। সেখানে গলায় গামছা পেঁচানো ভিকটিমের দেহ পড়ে থাকতে দেখে। পরে সেটি উদ্ধার করে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বামীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন স্ত্রী মোরশেদা। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানালেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

 এ নিয়ে যমুনায় প্রকাশিত প্রাথমিক প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে। 

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply