মাগুরায় দাম নিয়ে শঙ্কায় পেঁয়াজ চাষীরা

|

মাঠ থেকে পেঁয়াজ তুলছেন চাষীরা।

পেঁয়াজ চাষ করে দুশ্চিন্তায় মাগুরার কৃষক। বাজারে সরবরাহ বেশি থাকায় ন্যায্য দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন তারা। অভিযোগ, ভালো ফলন হওয়ায় দেশি জাতে সয়লাব স্থানীয় বাজার। এর পাশাপাশি আমদানিও অব্যাহত আছে। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, মৌসুমে পেঁয়াজ সংরক্ষণ করতে পারলে চাষিরা লাভবান হবেন।

জেলায় বারী পেঁয়াজ-১ ও লালতীর কিংসহ দেশীয় জাতের ভাল ফলন হয়েছে। প্রতি শতকে উৎপাদন হয়েছে, এক থেকে দেড় মণ। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত মূল্য মিলছে না। ভরা মৌসুমে আমদানি নিয়ন্ত্রণের পক্ষে পাইকাররা। পাইকারী ক্রেতা ও আড়ৎদাররা বলছেন, এতে করে চাষীরা অনেকটা নায্যমূল্য পাবেন।

সঠিকভাবে পেঁয়াজ সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেই। যে কারণে অনেকেই ভালো দামের আশায়, অপেক্ষা করতে পারছেন না। কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, সংরক্ষণ করা গেলে, ভালো দাম মিলতো।

এ নিয়ে মাগুরার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের ডিডি ড.হায়াত মাহমুদ বলেন, দেশি উপায়ে কীভাবে পেঁয়াজ সংরক্ষণ করা যায় তা নিয়ে আমরা কৃষকদের প্রশিক্ষণ দিয়েছি, এরফলে তাদের মধ্যে দক্ষতা তৈরি হয়েছে। এই সংরক্ষিত পেঁয়াজ বাজারে এলে তারা ভালো দাম পাবে।

জেলায় চলতি বছরে, ১১ হাজার হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষ করা হয়েছে। আমদানি নিয়ন্ত্রণের দাবি তুলেছেন কৃষক সমাজ।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply