আকস্মিক তেহরান সফরে বাশার আল আসাদ

|

বৈঠকের প্রাক্কালে বাশার আল আসাদ ও আয়াতুল্লাহ আল খোমেনি।

আকস্মিক ইরান সফরে এখন তেহরানে অবস্থান করছেন সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাসার আল-আসাদ। সেখানে দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি ও প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির সাথে বৈঠকের পর দামেস্কে ফেরেন আসাদ। খবর আলজাজিরার।

রোববার (৮ মে) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে আলজাজিরা এসব তথ্য জানায়।

বৈঠকে খামেনি বলেন, আন্তর্জাতিক যুদ্ধে বিজয় লাভ করায় সিরিয়ার বিশ্বাসযোগ্যতা আরও বেড়েছে এবং ইরান দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও জোরদার করতে চায়।

খামেনি আরও বলেন, যুদ্ধের আগের সিরিয়া আর আজকের সিরিয়া এক নয়। ধ্বংসস্তপ থাকলেও এখন সিরিয়ার সম্মান ও বিশ্বাসযোগ্যতা অনেক বেশি এবং সিরিয়া ক্রমশ আরও শক্তিশালী হচ্ছে।

বৈঠকে বাশার আল-আসাদকে উদ্দেশ্য করে খোমেনি বলেন, আমাদের ও আপনাদের প্রতিবেশি দেশগুলোর কিছু নেতা ইসরায়েলি নেতাদের সঙ্গে ওঠবস করেন, এমনকি এক সাথে বসে কফিও খান। কিন্তু এসব দেশের জনগণই বিশ্ব কুদস দিবসে রাস্তায় নেমে ইহুদিবাদের বিরুদ্ধে স্লোগান দেন। এটাই এখন এই অঞ্চলের বাস্তবতা।

আয়াতুল্লাহ খামেনি বাশার আল আসাদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, যুদ্ধে সিরিয়ার বিজয়ের পেছনে নানা কারণ রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি কারণ হলো আপনার মনোবল। এই মনোবল নিয়েই আপনি যুদ্ধের ক্ষতি পুষিয়ে দেশ পুনর্গঠন করতে সক্ষম হবেন ইনশাআল্লাহ। আপনার সামনে আরও অনেক বড় বড় কাজ রয়েছে।

ইরান-সিরিয়ার সম্পর্ককে আরও উন্নত করার আহ্বান জানিয়ে খোমেনি বলেন, ইরান ও সিরিয়ার মধ্যে সম্পর্ক ও বন্ধন উভয় দেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই সম্পর্ককে কোনোভাবে দুর্বল হতে দেয়া তো যাবেই না বরং যতটা সম্ভব জোরদার করতে হবে।

প্রসঙ্গত, বৈঠকে সিরিয়া যুদ্ধে সহযোগিতা ও সমর্থনের জন্য আন্তরিকভাবে ইরানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বাশার আল-আসাদ। সিরিয়দের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য ইরানের জনগণ ও সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ও প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক শেষে রোববারই সিরিয়ায় ফিরে গেছেন বাশার আল-আসাদ।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply