হাসপাতালের কমোডে সন্তান প্রসব প্রসূতির, পাইপ ভেঙ্গে উদ্ধার করলো বাবা

|

হাসপাতালের কমোড থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতক।

বরিশাল ব্যুরো:

হাসপাতালের টয়লেটের কমোডে কন্যা সন্তান প্রসব করেছেন শিল্পী বেগম নামের এক প্রসূতি নারী। তবে বিষয়টি তিনি বুঝে ওঠার আগেই টয়লেটের পাইপের ভেতরে গিয়ে আটকে যায় নবজাতক শিশুটি। পরে পাইপ ভেঙ্গে শিশুটিকে উদ্ধার করে তারই বাবা। বর্তমানে ওই নবজাতক ও তার মা দু’জনই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (৭ মে) বিকেলে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তৃতীয় তলায় প্রসূতি ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। নবজাতক শিশুটির পিতা নেয়ামত উল্ল্যাহ পেশায় একজন জেলে। তার গ্রামের বাড়ি পিরোজপুর জেলার স্বরূপকাঠী উপজেলার গণপাড়া শেখপাড়া এলাকায়। তিনি বলেন, শনিবার তার গর্ভবতী স্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রথমে স্বরূপকাঠী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তৃতীয় তলায় প্রসূতি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। রাতেই সিজার হওয়ার কথা ছিল। বিকালে ওষুধ কিনতে হাসপাতালের বাইরে আমি ফার্মেসিতে যাই। ফিরে এসে শুনি আমার স্ত্রী টয়লেটে সন্তান ডেলিভারি করেছে। ফ্লোরে কান পেতে মেয়ের কান্নার আওয়াজ পাই। এরপর তাড়াতাড়ি দোতলায় গিয়ে পাইপ ভেঙে মেয়েকে উদ্ধার করি।

তিনি জানান, তার স্ত্রী তেমন কোনো প্রসব বেদনা হয়নি। হাসপাতালে তিনি টয়লেটে গেলে সাথে থাকা স্বজন কমোডের মধ্যে কিছু একটা পড়ে যেতে দেখেন। বুঝতে পেরে তিনি চিৎকার শুরু করলেই বিষয়টি জানাজানি হয়।

এ নিয়ে হাসপাতালের পরিচালক ডা.এইচএম সাইফুল ইসলাম জানান, নবজাতক শিশুটিকে বিশেষ সেবা ইউনিটে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার মা শিল্পী বেগম প্রসূতি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের চিকিৎসায় বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। এছাড়া ওই টয়লেটটি আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানান এই পরিচালক।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply