মরে যাচ্ছে টেস্ট, টি-টোয়েন্টিই ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ: যুবরাজ

|

ছবি: সংগৃহীত

ভবিষ্যতে টি-টোয়েন্টি ভার্সনই হতে যাচ্ছে ক্রিকেটের মূল চেহারা বলে মনে করেন ভারতের জাতীয় দলের সাবেক তারকা ক্রিকেটার যুবরাজ সিং। দর্শক ও ক্রিকেটারদের কাছে টি-টোয়েন্টিই বেশি আকর্ষণীয় বলে টেস্ট ক্রিকেটের মৃত্যু আসন্ন বলেও মনে করছেন ২০১১ বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হওয়া যুবরাজ সিং।

দিন যতই যাচ্ছে, দর্শকরা টি-টোয়েন্টিতে ততই মজে উঠছে। চার-ছক্কার ফুলঝুড়িতে সাঁজানো ছোট ফরম্যাটের এই টুর্নামেন্টই ক্রিকেটপ্রেমীদের মূল আকর্ষণে পরিণত হওয়ার অনেক লক্ষণই দেখা গেছে। শুধু দর্শকই নয়, আয়োজকরাও এই ফরম্যাটে গা ভাসিয়েছে। কম সময়ে, অধিক মুনাফার জন্য এখন টি-টোয়েন্টিই সকলের আগ্রহের কেন্দ্রে। বিভিন্ন ফেডারেশনও ধীরে ধীরে পরিকল্পনা হারিয়ে ফেলছে ওয়ানডে আর টেস্টকে ঘিরে। যার খেসারত ২০১৯ বিশ্বকাপে ভারত হাতে নাতে পেয়েছে বলে জানান যুবরাজ সিং। তিনি বলেন, সেই দলে চার নম্বরে ব্যাট করা বিজয় শঙ্কর মাত্র ৫ থেকে ৭ ওয়ানডে খেলেছিল। এরপর তার জায়গায় নেয়া হলো রিশাভ পান্তকে, যে খেলেছে মাত্র ৪ ওয়ানডে। অথচ ২০০৩ এ খেলা আমি, কাইফ, মোঙ্গিয়া সকলের ৫০ এর বেশি ওয়ানডে খেলার অভিজ্ঞতা ছিল। অভিজ্ঞতা না নিয়ে যাওয়াটাই সবচেয়ে বড় অপরিকল্পনার প্রমাণ। এতেই বোঝা যায়, আমাদের বোর্ডগুলো ওয়ানডে বিশ্বকাপ নিয়ে তেমন কোনো পরিকল্পনাই করে না।

টি-টোয়েন্টি আর টি-টেনকে এরই মধ্যে ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ বলছেন যুবরাজ সিং। তার মতে লম্বা ভার্সন অনেকটাই মৃত, সবাই দেখতে ও খেলতে চায় ছোট ফরম্যাটে। যুবরাজ বলেন, টেস্ট ক্রিকেট প্রায় মরে যাচ্ছে। আমি ৫ দিন ক্রিকেট খেলে ৫ লাখ আয় করবো, টি-টোয়েন্টি খেললে পাচ্ছি ৫০ লাখ। এমনকি আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়নি, এমন ক্রিকেটাররা অনায়াসেই ৭ থেকে ১০ কোটি আয় করছে।

বড় ফরম্যাটে আগ্রহ হারানোর উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বাংলাদেশের ক্রিকেটে। ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ঘিরে নেই তেমন কোনো পরিকল্পনা। এর পেছনেও কাজ করছে টি-টোয়েন্টির উন্মাদনা। বছরের শেষ দিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থাকায় ওয়ানডে নিয়ে নেই কোনো বিশেষ পরিকল্পনা। যুবরাজ সিং অবশ্য মনে করেন শুধু দর্শকরা নয় ক্রিকেটাররাও ছোট ফরম্যাটেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। তিনি বলেন, টি-টোয়েন্টি দেখে আপনি ওয়ানডে দেখতে বসলে মনে হবে টেস্ট খেলা দেখছেন। আর ক্রিকেটারদের কাছে ২০ ওভারের পর মনে হয় আরো ৩০ ওভার খেলতে হবে! তাই বলাই যায়, টি-টোয়েন্টিই সব কিছুতে আধিপত্য বিস্তার করতে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: ঘণ্টায় ১৫৬.৯ কিলোমিটারে বল করে উমরান মালিকের আইপিএল রেকর্ড

/এম ই





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply