প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপ যা গুগল ম্যাপে অদৃশ্য হয়ে যাচ্ছে

|

গুগল ম্যাপে এমন একটি দ্বীপ রয়েছে যা কখনও দেখা যায় আবার কখনো অদৃশ্য! বিষয়টি বিজ্ঞানীদের সম্পূর্ণ বিভ্রান্ত করে ফেলেছে। অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ ক্যালেডোনিয়া নামক একটি দ্বীপের মধ্যে অবস্থিত একটি অস্পষ্ট ভূমি এটি, যা বহু বছর ধরে একটি রহস্য হয়ে আছে।

উল্লেখিত দ্বীপটি প্রথম ১৭৭৬ সালে ব্রিটিশ নাবিক ক্যাপ্টেন জেমস কুকের ‘চার্ট অফ ডিসকভারিজ ইন দ্য সাউথ প্যাসিফিক মহাসাগরে’ প্রকাশিত হয়েছিল। ঠিক একশো বছর পর ১৮৭৬ সালে একটি জাহাজ শিকার করতে গিয়ে দেখেছিল বলে জানিয়েছিল। ফলে ১৯ শতকের দিকে দ্বীপটি ইংল্যান্ড এবং জার্মানির বেশ কয়েকটি মানচিত্রে জায়গা করে নেয়। বার্তা সংস্থা এক্সপ্রেস অনুযায়ী, এটি আবারও ১৮৯৫ সালে দেখা গিয়েছিল। দ্বীপটি আয়তনে ২৪ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং ৫ কিলোমিটার প্রশস্ত বলে জানা যায় তখন।

পরে ১৯৭৯ সালে ফরাসি হাইড্রোগ্রাফিক সার্ভিস এটিকে তার নটিক্যাল চার্ট থেকে সম্পূর্ণরূপে সরিয়ে দিয়ে দ্বীপটির অস্তিত্ব নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে। ২০১২ সালের নভেম্বরে বেশ কয়েকজন অস্ট্রেলিয়ান বিজ্ঞানী স্যান্ডি দ্বীপের দিকে যান কিন্তু তখন তারা সমুদ্র ছাড়া আর কিছুই দেখতে পাননি। এমনকি তারা সেই জায়গার গভীরতাও রেকর্ড করেছিলেন। যা ছিল ৪৩০০ ফুট গভীর। এ গভীরতা থেকে বোঝা যায় যে দ্বীপটির সমুদ্রের নীচে ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা কম নয়। এর ৪ দিন পর গুগল ম্যাপস দ্বীপটি ম্যাপ থেকে সরিয়ে দেয়।

আপনি যদি গুগল ম্যাপে দ্বীপটিতে ক্লিক করেন তবে সেখানে খুব ছোট একটি ভূমি দেখা যেত যেটি এখন আর দেখা যায় না। কেউ সত্যিই জানে না যে দ্বীপটি কখনও বিদ্যমান ছিল কিনা। আর এভাবে এটি এখনও পর্যন্ত একটি রহস্য হিসেবেই রয়ে গেছে।

এটিএম/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply