ঢাকার পাশেই আছে অন্যরকম একটি লাইব্রেরি

|

একটি বইঘরের কথা বলি। যেখানে সূর্যের রশ্মি ঠিকরে এসে পড়ে অন্দরে, বইয়ের পাতায়, পাঠকের শরীরজুড়ে। কালো কালো অক্ষরে আলোর বিচ্ছুরণ যেন ঘরজুড়ে। এমন নির্মল শান্তিময় পরিবেশ, বই পাঠের জন্য আর কোথায় মিলতে পারে? মিলতে পারে ঢাকার পাশে জিন্দাপার্কে। জিন্দাপার্ক মানেই সবুজ, মায়াময়, স্নিগ্ধ, খোলামেলা চারপাশ। রাজধানীর খুব কাছের এই পার্কটিতেই আছে গ্রামীণ আবহে পারিবারিক সময় কাটানোর হাতছানি। আছে এমন একটি লাইব্রেরি যা আপনাকে মুগ্ধ করতে বাধ্য।

আমরা যে গ্রন্থাগারটির কথা বলছি, তার স্বচ্ছ কাচের দেয়াল দিয়ে বাইরের পুরোটাই দেখা যায়। কাঠের বেঞ্চে বসে অনায়াসে পাঠক, বই আর সেই বইয়ের পাতার লেখা ধরে আনমনে হারাতে পারেন কল্পরাজ্যে। হাঁটতে পারেন লেখকের সঙ্গে দূর, বহুদূর। আপনি অনায়াসে তার সাথে বন্ধুত্ব করতে পারবেন, ভাগ করে নিতে পারবেন আপনার আনন্দ বেদনা। আর এমন বন্ধুকে যদি সারাদিনের জন্য নিরিবিলি কোলাহলমুক্ত পরিবেশে একটি লাইব্রেরিতে পান, তাহলে তো সোনায় সোহাগা। তেমনই একটি লাইব্রেরি এটি।

লাইব্রেরী হতে পারে স্থাপত্যশৈলী প্রদর্শনের বিষয়বস্তু, সেই ভাবনাটাও অনন্য। পাঁচতলা জুড়ে নানা রকম বিষয়ের, সারি সারি বই আছে দর্শনার্থী ও পাঠকের জন্য। বই পড়ার এমন নির্মল পরিবেশে প্রবেশ করতে গুনতে হয় বিশ টাকা। যদিও এতো সুন্দর বই পড়ার পরিবেশ পেয়েও আগ্রহী পাঠকের দেখা মেলা ভার।

কর্তৃপক্ষ বলছে, পাঠকের জন্য স্থান আর পরিবেশের পাশাপাশি ভবনজুড়ে বিপুল বইয়ের সমাহার গড়ে তুলতে চান তারা। সেজন্য উৎসাহীরা বই দিতে পারবেন এখানে।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply