যৌতুকের দাবিতে গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয় স্বামী, ৮ দিন পর মৃত্যু গৃহবধূর

|

অভিযুক্ত স্বামী আসাদ সরকার।

কুমিল্লা ব্যুরো:

কুমিল্লার দেবীদ্বারে গৃহবধূর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয়ার ৮ দিন পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। নিহত ওই গৃহবধূর নাম সাদিয়া বেগম (৩০)। তিনি উপজেলার পদ্মকোট গ্রামের ফরিদুল আলম অপু সরকারের মেয়ে এবং একই উপজেলার গুনাইঘর ইউনিয়নের গুনাইঘর গ্রামের নুরুল ইসলাম সরকারের ছেলে আসাদ সরকারের স্ত্রী।

শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা চলাকালে তার মৃত্যু হয়। নিহতের স্বজনরা জানায়, গত শনিবার (২৩ এপ্রিল) সকাল ৮টায় সাদিয়ার স্বামী আসাদ সরকারের সাথে তার বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। এর এক পর্যায়ে সাদিয়ার শরীরে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন আসাদ। পরে সাদিয়ার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে আগুন নিভিয়ে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে সাদিয়ার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। এর ৮ দিন পর আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।

এর আগে, লাইফ সাপোর্টে থাকাকালে সাদিয়া জানায়, যৌতুকের টাকার জন্য তার স্বামী তাকে এর আগেও একাধিকবার গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করার হুমকি দিয়েছে। গত পাঁচ মাস ধরে যৌতুকের জন্য তাকে প্রতিনিয়ত শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছে। এরই জেরে গত ২৩ এপ্রিল কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় স্বামী আসাদ।

ঘাতক স্বামী আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন সাদিয়ার বাবা ফরিদুল আলম (অপু)। গত বুধবার (২৭ এপ্রিল) রাতে আসাদ সরকারকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply