পামঅয়েল রফতানি বন্ধ করেছে ইন্দোনেশিয়া, বিশ্বজুড়ে ভোজ্যতেলের বাজার টালমাটাল

|

বিশ্বের শীর্ষ পামঅয়েল রফতানিকারক দেশ ইন্দোনেশিয়া। দেশটির ১ কোটি ৬৪ লাখ হেক্টর জমিতে চাষ হয় পামঅয়েল। তাদের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তিও এই খাত। প্রতিমাসে আড়াইশো থেকে তিনশো কোটি ডলারের পামঅয়েল রফতানি করে দেশটি। তবে সম্প্রতি স্থানীয় বাজারে ঘাটতি আর দাম কমাতে রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। এর পরপরই ইন্দোনেশিয়ার বাজারে পামঅয়েল ও এর কাঁচামালের দাম বেশ কমে যাওয়ায় কমেছে যা বিপাকে ফেলেছে চাষিদের। এতে বিপাকে পড়েছেন দেশটির পামঅয়েল চাষিরা। বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ার শঙ্কা তাদের।

কৃষকরা বলছেন, পামঅয়েল ফলের দাম অর্ধেকে নেমে এসেছে। এভাবে দাম কমতে থাকলে কৃষকরা সার কিনতে পারবে না, উৎপাদনও অনেক কমে যাবে। তার ওপর বেড়েছে সারের দামও।

বিশ্বজুড়ে ভোজ্যতেল হিসেবে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয় পামঅয়েল। আর বিশ্বের প্রায় অর্ধেক পামঅয়েলের যোগান দেয় ইন্দোনেশিয়া। তারা রফতানি বন্ধ করায় এর প্রভাব পড়েছে বিভিন্ন দেশে। তাই ইন্দোনেশিয়ায় কমলেও অনেক জায়গায়ই বেড়েছে ভোজ্যতেলের দাম। যার ফলে বেড়েছে অনেক খাবারের দামও।

করোনা মহামারির পর রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধ। আর এখন ইন্দোনেশিয়ার এই নিষেধাজ্ঞা। একের পর এক সংকটের কারণে টালমাটাল গোটা বিশ্বের ভোজ্যতেলের বাজার।

/এডব্লিউ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply