করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ে আত্মঘাতী হামলাকারী ছিলেন দুই সন্তানের মা, চিকিৎসক স্বামী বললেন ‘গর্বিত’

|

আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী ব্রামাশ। ছবি: সংগৃহীত।

পাকিস্তানের করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ে চীনা শিক্ষকদের বহনকারী একটি মিনিবাসে আত্মঘাতী বোমা হামলা হয় মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল)। এরই মধ্যে সেই হামলার দায় স্বীকার করেছে দেশটির নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন বালুচিস্তান লিবারেশন আর্মি (বিএলএ)। তবে এবারে জানা গেল আত্মঘাতী হামলাকারী সেই নারীর পরিচয়।

রয়টার্সের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম দ্য উইক বলছে, ওই নারীর নাম শারি বালোচ ওরফে ব্রামশ। তিনি উচ্চ শিক্ষিত এবং হামলার শিকার করাচি বিশ্ববিদ্যালয়েরই সাবেক শিক্ষার্থী ছিলেন। তার স্বামী পেশায় একজন দন্ত চিকিৎসক এবং দুই সন্তানের জননী এই ব্রামশ। এসব তথ্য প্রকাশ করেছে জঙ্গি সংগঠন বিএলএ। বোমা হামলার পর দুই সন্তানের সাথে ব্রামাশের একটি ছবি প্রকাশ করে বিএলএ। সংগঠনটি আরও দাবি করে, ব্রামাশই তাদের সংগঠনের প্রথম আত্মঘাতী নারী সদস্য এবং এর মাধ্যমে সংগঠনটির একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা হলো।

জানা গেছে, আত্মঘাতী বোমা হামলার কয়েক ঘণ্টা আগে নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে বন্ধু ও আত্মীয় স্বজনদেরকে বিদায় জানান ব্রামাশ। ‘গুডবাই’ লেখা তার সেই টুইট এরই মধ্যে প্রকাশ্যে এসেছে। এদিকে, তার স্বামীরও খোঁজ মিলেছে বলে দাবি এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের। এই সংবাদ মাধ্যমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্রামাশের স্বামী হাবিতান বশির বালোচ একজন ডেন্টিস্ট। ব্রামাশের এই ঘটনায় তিনি হতবাক হলেও স্ত্রীর এই কর্মে গর্বিত বলে জানিয়েছেন। এ নিয়ে একটি টুইটও করেছেন তিনি। অবশ্য সেই টুইট সম্পর্কে আর কোনো বিস্তারিত তথ্য জানা যায়নি।

টুইটে হাবিতান লেখেন, “শারি জান, তোমার নিঃস্বার্থ এই কাজ আমাকে বাকরুদ্ধ করে দিয়েছে। কিন্তু আমি আজ গর্বিত। মাহরোচ এবং মীর হাসান (তাদের ৮ ও ৫ বছর বয়সী দুই সন্তান) খুব গর্বের সাথে বড় হবে এই ভেবে যে, তাদের মা একজন মহান নারী ছিলেন। তুমি আমাদের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে থাকবে।’

৩০ বছর বয়সী শারি বালুচিস্তানের তুরবাতের নিয়াজার আবাদের বাসিন্দা ছিলেন। তিনি প্রাণীবিদ্যায় স্নাতকোত্তর করেছেন বালুচিস্তান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। এমফিল করেছেন আলামা ইকবাল মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ২০১৪ সালে বিএড করেন শারি, ২০১৮ সালে এমএড। বালুচিস্তানের কেচ জেলায় একটি প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষকতাও করছিলেন তিনি।

ছাত্রাবস্থায় বালোচ স্টুডেন্টস’ অর্গানাইজেশন-এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন শারি। বছর দুয়েক আগে সংগঠনের আত্মঘাতী স্কোয়াড মজিদ ব্রিগেডে যোগ দিয়েছিলেন। গত দু’বছর ধরে মজিদ ব্রিগেডের বিভিন্ন শাখার সঙ্গে কাজ করেন শারি। এই সময়ের মধ্যে আত্মঘাতী হামলা চালানোর জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছিলেন।

এসজেড/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply