‘অপ্রতিদ্বন্দ্বী’ এরদোগানের সঙ্গে লড়বেন তিনি

|

আগামী জুন মাসে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নিজেদের প্রার্থী ঘোষণা করেছে দেশটির মূল বিরোধী দল সিএইচপি (রিপাবলিকান পিপলস পার্টি)। কট্টর সেকুলার এবং এরদোগানের সমালোচক বলে পরিচিত মুহারেরম ইনজি’কে প্রার্থী করা হয়েছে। তিনি ২০০২ সাল থেকে সবক’টি নির্বাচনে জয়ী হওয়া একজন এমপি।

আজ শুক্রবার দলের পক্ষ থেকে তাকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

আগামী ২৪ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে বর্তমানের সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখতে পারলে এরদোগান হবেন দেশটির ইতিহাসে সাংবিধানিকভাবে সবচেয়ে ক্ষমতাধর নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট।

ধর্মীয় রক্ষণশীল দল একে পার্টির প্রার্থী এরদোগানকে হারাতে সর্বোচ্চ চেষ্টাই করছে বিরোধীদল। এজন তাদের আদর্শিক ঘোরবিরোধী হিসেবে পরিচিত কট্টর ইসলামপন্থী দল সাদাত পার্টির সাথেও জোট গড়ার চিন্তা করছে কট্টর সেকুলার সিএইচপি।

মুহারেরম ইনজি মনে করেন ২০১৬ সালের ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানে মূলত সরকার ও এরদোগানের হাত ছিল। তিনি আরও বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে এরদোগানের তৈরি বর্তমান বিলাসবহুল প্রেসিডেনিশিয়াল প্যালেসটি নিলামে ওঠাবেন।

তবে বর্তমানে মাত্র ২৫ শতাংশ জনসমর্থন নিয়ে সংসদে বিরোধীদল হিসেবে আছে মুহারেরমের দল। অন্যদিকে ৪৯ শতাংশ ভোটে বর্তমানে সংখ্যাগরিষ্ঠ হিসেবে সরকারে আছে এরদোগান দল একে পার্টি। ২০০২ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর বিগত ১৬ বছরে এরদোগান হচ্ছে তুরস্কের রাজনীতির অপ্রতিদ্বন্দ্বী চরিত্র। তার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে মুহারেরম কতটুকু সফল হতে পারেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।









Leave a reply