শেষ পর্যন্ত ক্রিজে থাকা ফিনিশারের দায়িত্ব: ধোনি

|

অতিমানবীয় এক ইনিংস খেলে চেন্নাই সুপার কিংসকে রোমাঞ্চকর জয় উপহার দিয়েছেন ধোনি। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে আম্বাতি রাইডুকে উমেশ যাদব রানআউট করলে ম্যাচটা রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর দিকেই হেলে যায়। পরে তাদের মুঠো থেকে ম্যাচটি বের করে নেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি।

ধোনির ইনিংসটি নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। কারণ তাতে ম্লান হয়ে গেছে এবি ডি ভিলিয়ার্সের ঝড়ো গতির ৬৮ রানের ইনিংসটি। এ বিষয়ে কথা বলেছেন ধোনিও, একজন ফিনিশারের দায়িত্ব শেষ পর্যন্ত ক্রিজে থাকা। তাতে জয় বা হার হোক। সেই কাজটিই করেছি।

কুইন্টন ডি ককের ৫৩ ও ভিলিয়ার্সের বিস্ফোরক ইনিংসে প্রথমে ব্যাট করে ২০৫ রানের পাহাড় গড়ে বেঙ্গালুরু। তা চেজ করতে গিয়ে শেষদিকে জমে ওঠে ম্যাচ। জয়ের জন্য শেষ ৩ বলে দরকার ছিল ৫ রান। সেই অবস্থায় কোরি অ্যান্ডারসনের বল বাউন্ডারির বাইরে পিঠিয়ে দলকে জয় উপহার দেন ধোনি। তার অনবদ্য ব্যাটিংয়ে আরেকটি রুদ্ধশ্বাস জয় পায় চেন্নাই। মাত্র ৩৪ বলে অপরাজিত ৭০ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন ধোনি।

এ জয়ে ভূমিকা রেখেছেন রাইডুও। তার ব্যাট থেকে আসে গুরুত্বপূর্ণ ৮২ রান। তার প্রশংসা করতেও ভুল করেননি ধোনি, ডি ভিলয়ার্সের ইনিংস দেখেই মনে হয়েছিল, আমরা কিছু রান বেশি দিয়ে ফেলেছি। রাইডু অসাধারণ খেলেছে। টি-টোয়েন্টির জন্য ও আদর্শ ক্রিকেটার। আমাদের ব্যাটিং লাইনে ওর উপস্থিতি শক্তিমত্তা বাড়িয়েছে।

এমন ইনিংসের পর ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতে নিয়েছেন এম এস ধোনি।

যমুনা অনলাইন: এটি









Leave a reply