ঢাকা-কাঠমান্ডু রুটে দুটি বাসের পরীক্ষামূলক যাত্রা

|

অচিরেই শুরু হচ্ছে ঢাকা-কাঠমান্ডু সরাসরি বাস সার্ভিস। এই সার্ভিস খতিয়ে দেখতে সকালে ঢাকা থেকে কাঠমান্ডুর উদ্দেশে যাত্রা করেছে দুটি বাস। শ্যামলী-এন আর ট্রাভেলসের বাস দুটিতে ভ্রমণ করছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, দাতা সংস্থা এবং ভারত ও নেপালের প্রতিনিধি সহ ৪৫ জন যাত্রী। সড়কে বাস চলাচলের উপযোগিতা যাচাই, ভাড়া নির্ধারণ এবং তিন দেশের মধ্যে বাস চলাচলের বিভিন্ন বিষয় ঠিক করবেন তারা।

সকালে কমলাপুর বিআরটিসির বাস ডিপোতে এই যাত্রার শুভ উদ্বোধন করেন সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম খান। পরীক্ষামূলক এই যাত্রায় বাসটি কাঠমান্ডু পৌঁছাতে তিন দিন সময় নেবে। অর্থাৎ গন্তব্যে পৌঁছাবে বৃহস্পতিবার।

২৩ এপ্রিল রাতে বাস দুটি যাত্রাবিরতি করবে পঞ্চগড়ে। ২৪ এপ্রিল সকালে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে প্রবেশের পর বাস দুটি ঢুকবে শিলিগুড়িতে। এদিন রাতে শিলিগুড়ি অবস্থান করবে প্রতিনিধি দল।

২৫ এপ্রিল সকালে কাঁকরভিটা দিয়ে নেপালে প্রবেশ করবে বাস। নেপালের নারায়ণঘাট নামে একটি জায়গায় রাত্রিযাপন করবে প্রতিনিধি দল। ২৬ এপ্রিল সকালে নারায়ণঘাট থেকে কাঠমান্ডুর পথে রওয়ানা হবে বাস। কাঠমান্ডু পৌঁছে ২৭ এপ্রিল বাংলাদেশ-ভারত-নেপালের প্রতিনিধিদল বৈঠক বসবেন।

ঢাকা থেকে বাংলাবান্ধার দূরত্ব প্রায় ৪৫০ কিলোমিটার। সেখান থেকে নেপালের কাঁকরভিটা স্থলবন্দরের দূরত্ব ৫৪ কিলোমিটার। কাঁকরভিটা থেকে কাঠমান্ডুর দূরত্ব প্রায় ৬০০ কিলোমিটার। এর মধ্যে ২২০ কিলোমিটার পাহাড়ি রাস্তা। সবমিলিয়ে ঢাকা থেকে কাঠমান্ডু ১১০৪ কিলোমিটার সড়কপথ।

যাত্রাপথে বাংলাদেশ ও ভারতের অংশ সমতল ভূমি কিন্তু নেপালের অংশের কি অবস্থা সেটাই যাচাই করবেন কর্মকর্তারা। সেই কারণেই বিভিন্ন স্পটে থেমে থেমে যাবে বাস দুটি। তবে কর্তৃপক্ষ আশাবাদি বাণিজ্যিকভাবে সার্ভিস চালু হলে ৩০ ঘন্টার মধ্যেই ঢাকা থেকে কাঠমান্ডু পৌঁছে যাওয়া সম্ভব।

বিআরটিসি সূত্র জানায়, এই বাস সার্ভিস চালু হলে সাধারণ যাত্রীরা খুব সহজেই নেপাল যেতে পারবেন। ভারতের মাল্টিপল ও ডাবল এন্ট্রি ভিসা নিয়ে যেতে হবে। তবে ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করা হতে পারে। শুধু পাসপোর্ট দিয়ে অন-অ্যারাইভাল ভিসার মতো পদ্ধতিতে এ ভ্রমণ হতে পারে।









Leave a reply