হল থেকে বিতাড়িত ছাত্রীদের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচারের অভিযোগ

|

সুফিয়া কামাল হলের ছাত্রীদের হল থেকে বের করে দেয়া হয়নি বলে দাবি করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান।

সকালে সংবাদ সম্মেলন করে গতরাতের ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়েছেন ভিসি। ড. আখ্তারুজ্জামান বলেছেন, সুফিয়া কামালের তিন শিক্ষার্থীকে অভিভাবকের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে মাত্র। ফেসবুকের মাধ্যমে অপতথ্য প্রচার করে বিশ্ববিদ্যালয়কে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করেছিলো ছাত্রীরা। উপাচার্য জানান, হলের শৃঙ্খলা রক্ষায় এটি করা হয়েছে।

গভীর রাতে কেন? এ প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য জানান, সব অভিভাবকদের বিকালেই ডাকা হয়েছিলো। কিন্তু তারা আসতে দেরি করেছেন বলে হস্তান্তরে একটু রাত হয়ে গেছে। অভিযোগ করেন যে, সাধারণ এই ঘটনা নিয়ে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে।

এর আগে গভীর রাতে অভিভাবকদের ডেকে নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম সুফিয়া কামাল হল থেকে কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়। রাত ১২টার পর একাধিক শিক্ষার্থীকে তাদের অভিভাবকদের সাথে হল থেকে বের হতে দেখা যায়। তবে তারা কেউই গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেননি।

এক অভিভাবক বলেন, সন্তান কোটা সংস্কার আন্দোলনে অংশ নেয়ায় তাদের ডেকে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি দাবি করেন, কাউকেই হল থেকে বের করে দেয়ার মত কোন ঘটনা ঘটেনি। হয়তো ছুটিতে বাড়ি গেছে ছাত্রীরা।

 









Leave a reply