ক্লিনিকে ভর্তি হলো কন্যা শিশু, ফেরত দিলো ছেলে শিশুর লাশ

|

নবজাতক বদলে এক মাকে গছিয়ে দেয়া হলো মৃত শিশু। চট্টগ্রামে ‘চাইল্ড কেয়ার’ নামে বেসরকারি এক ক্লিনিকে ঘটেছে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা। জানাজানির পর রীতিমতো তোলপাড় সৃষ্টি হয়। থানায় অভিযোগ দায়ের আর অনেক নাটকের পর অবশেষে জীবিত কন্যা শিশু ফেরত দেয় ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ। হাসি ফোটে মায়ের মুখে।

জানা যায়, বিয়ের প্রায় ৫ বছর পর গেল ১২ এপ্রিল ফুটফুটে এই কন্যা সন্তানের জন্ম দেন নোয়াখালীর মাইজদী এলাকার দুবাই প্রবাসী মহিউদ্দিনের স্ত্রী রোকসানা আকতার। কিন্তু শ্বাসকষ্টজনিত কারণে পরদিন শিশুটিকে প্রথমে চট্টগ্রামের মা ও শিশু হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসকদের পরামর্শে পরদিন শিশুটিকে নগরীর চাইল্ড কেয়ার ক্লিনিকে স্থানান্তর করে তার পরিবার। সেখানে ৩ দিন আইসিইউতে রাখার পর মঙ্গলবার সকালে জানানো হয় শিশুটি মারা গেছে। মরদেহ মাইজদিতে নিয়ে দাফনের আগে পরিবারের হঠাৎ করে চোখে পড়ে কন্যা সন্তানের বদলে তাদের দেয়া হয়েছে পুত্র সন্তানের মরদেহ। এ ঘটনায় নগরীর পাঁচলাইশ থানায় জিডি করার পর বুধবার শিশুটিকে ফিরিয়ে দিয়েছে চাইল্ড কেয়ার কর্তৃপক্ষ।

চাইল্ড কেয়ারে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বেসরকারি দুটি ল্যাবরেটরিতে করা দুটি টেস্টেও উল্লেখ রয়েছে কন্যা শিশুর বিষয়টি। পরিবারের অভিযোগ চেহারা দেখতে না দিয়েই তড়িঘড়ি করে মরদেহ বুঝিয়ে দেয়া হয়েছিল তাদের। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চান শিশুটির পরিবার।

একজনের সুস্থ একটি শিশুকে বদলে আরেকজনের মৃত শিশু ধরিয়ে দেয়ার এই ঘটনাকে চরম প্রতারণা ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলছেন মানবাধিকার কর্মীরা।

তবে এ ঘটনাকে ভুল বোঝাবুঝি বললেও ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হয়নি চাইল্ড কেয়ার কর্তৃপক্ষ।









Leave a reply