গোপালগঞ্জের সেই ঘাতক ট্রাক ড্রাইভার গ্রেফতার

|

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,গোপালগঞ্জ

গোপালগঞ্জে ওভারটেকিং করার সময় ট্রাকের ধাক্কায় পরিবহন শ্রমিক হৃদয় শেখের হাত হারানোর ঘটনায় অভিযুক্ত ট্রাক চালক জাকির হোসেনকে (২৮) প্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাতে বাগেরহাটের কাটাখালী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার পুলিশের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

হাত হারানো হৃদয় শেখের বাবা শেখ রবিউল ইসলাম জানান, হৃদয়কে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে জরুরী বিভাগের নিচতলায় ১০২ নং ওয়ার্ডের ২৪ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। হৃদয়ের কেটে পড়া হাত জোড়া লাগানো সম্ভব নয় বলে চিকৎসকরা জানিয়েছেন।

গোপালগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, দুর্ঘটনা ঘটার পর ট্রাক চালক পালিয়ে যায়। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাগেরহাটের কাটাখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘাতক ট্রাকসহ চালক জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। আজ বুধবার তাকে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান ওসি।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক তদন্তে জানাগেছে হৃদয় শেখের হাত হারানোর ঘটনায় ট্রাক চালকের দোষ পাওয়া গেছে। এই কারণে ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার পুলিশকে বিষয়টি জানানো হলে তারা গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। গ্রেফতারকৃত ট্রাক চালক জাকির হোসেন মাদারীপুর জেলার শিবচর থানার পশ্চিম কাকই গ্রামের মৃত নুরু শরীফের ছেলে।

ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি এজাজুল ইসলাম বলেন, ট্রাক চালক অনিয়ন্ত্রিত ভাবে গাড়ী চালাচ্ছিল। এই কারণে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। সড়কে অনিয়ন্ত্রিত গাড়ী চালানো দন্ডনীয় অপরাধ। এই কারণে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস-এর ঢাকাগামী একটি যাত্রীবাহী বাস ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের বেদগ্রাম এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিকে থেকে আসা দ্রুতগামী একটি ট্রাক ব্যাটারী চালিত একটি ইজিবাইককে ওভারটের করতে যায়। এসময় ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটির সাথে সজোরে ধাক্কা লাগায়। এসময় হৃদয়ের ডানহাত কেটে শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে রাস্তায় পড়ে যায়। একটি সূত্র জানায় এসময় হৃদয়ের হাত বাসের বাইরে ছিল। তাকে প্রথমে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

উল্লেখ্য, হাত হারানো যুবক হৃদয় টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেসের অন্য একটি গাড়িতে হেলপার হিসাবে কাজ করে। সে টুঙ্গিপাড়া থেকে গোপালগঞ্জ জেলা সদরে আসার সময় এ দুর্ঘটনায় পড়ে।









Leave a reply