প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে পনিরের পুলিৎজার-গৌরব

|

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাকর পুরস্কার ‘পুলিৎজার’র ভাগীদার হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন ফটোসাংবাদিক মোহাম্মদ পনির হোসেন। এ বছর আন্তর্জাতিক প্রতিবেদন ও ফটোগ্রাফি ক্যাটাগরিতে যুক্তরাজ্যের সংবাদ সংস্থা রয়টার্স পুলিৎজার পুরস্কার পেয়েছে। রয়টার্সের পুরস্কার বিজয়ী সাংবাদিক দলের অন্যতম সদস্য হলেন পনির হোসেন।

রোহিঙ্গা সংকট ও বাংলাদেশ-মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দুর্দশা নিয়ে প্রকাশিত ১৬টি ছবি পুলিৎজার পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে। রয়টার্স ফটোগ্রাফি টিমের সাত সদস্যের তোলা এসব ছবির মধ্যে আছে বাংলাদেশি মোহাম্মদ পনির হোসেনের ৩টি ছবি।

যমুনা অনলাইনকে পনির জানান, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার দিকে খবরটা আমি জানতে পারি। পুলিৎজার পুরস্কারের ঘোষণা ইউটিউবে লাইভ টেলিকাস্ট করা হচ্ছিল। সেখানে বলা হয়েছিল ‘রয়টার্স টিমের’। পরে আমাকে লন্ডন থেকে ফোন করে নিশ্চিত করা হয় আমিও পুরস্কারের ভাগীদার। আসলে আমি খুবই আনন্দিত। যতদূর জানি বাংলাদেশে এর আগে কেউ এ পুরস্কার পায়নি। সেদিক থেকে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এই অর্জনে আমি অত্যন্ত গর্বিত। গতরাত থেকে এখন পর্যন্ত ঘুমাইনি।’

রোহিঙ্গা সংকটকে ২০১৭ সালের সবচেয়ে বড় ইস্যু উল্লেখ করে পনির বলেন, সংকটের সময়ই সাংবাদিক ও ডাক্তারদের দক্ষতার পরীক্ষা দিতে হয় বেশি। রোহিঙ্গা ইস্যুতে কাজ না করলে মানুষের দুঃখ-কষ্ট কত তীব্র হতে পারে সেটি আমি এভাবে বুঝতে পারতাম না।

গত বছরের ২৫ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে কাজ শুরু করেন পনির। ছবি তোলার অভিজ্ঞতার বিবরণ দিতে গিয়ে পনির আরও বলেন, সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে প্রচণ্ড বৃষ্টি নেমেছিল। আবহাওয়া অনেক বিরূপ ছিল। ছবি তুলতে গিয়ে লেন্সের ভেতরে পানি ঢুকে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। ক্যামেরা বাঁচিয়ে ছবি তুলতে হচ্ছিল। ছবি ঘোলা হয়ে যাচ্ছিল। এসব সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে হাঁটু কাদা ভেঙে আমরা অনেক ছবি তুলেছি।

পনিরের তোলা এই ছবিটিও পুলিৎজারের জন্য মনোনীত হয়েছে। যেখানে নৌকাডুবিতে নিহত ৪০ দিন বয়সী শিশুর ঠোঁটে চুমু খাচ্ছেন মা।

এমন মানবিক বিপর্যয়ের ছবি তুলে আনার পর হোটেলে ফিরে প্রায়ই ভূপেন হাজারিকার ‘মানুষ মানুষের জন্য’ গানটি শুনতেন পুলিৎজার জয়ী এ বাংলাদেশি। বিশেষ কোনো একটি ছবি তোলার ঘটনা জানতে চাইলে পনির বলেন, সেপ্টেম্বরের ১৪ তারিখ টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে একটি নৌকা ডুবে যায়। ঘটনার ৫-১০ মিনিটের মধ্যেই আমরা সেখানে পৌঁছাই। একটি ছবি পাই, রোহিঙ্গা মা তার ৪০ দিনের শিশুর ঠোঁটে চুমু খেয়ে কাঁদছেন। এই ছবিটিও পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছে। ছবি তোলার সময় ফটোগ্রাফার হিসেবে আমি পেশাদার আচরণ করছিলাম। পরে যখন ফিরে এসে সেগুলো দেখতে থাকি আমি কান্না আটকে রাখতে পারিনি।

চট্টগ্রামের খাজা আজমেরি হাইস্কুলের ছাত্র পনির হোসেন উচ্চমাধ্যমিক পড়েছেন ঢাকার সিটি কলেজে। পরে বেসরকারি নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে গ্রাজুয়েশন করে ফিলিপাইনের অ্যাতেনিও ডি ম্যানিলা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভিজুয়াল জার্নালিজমের ওপর উচ্চশিক্ষা নেন।

উল্লেখ্য, মার্কিন সংবাদপত্র সেন্ট লুইস ডিসপাচ ও দি নিউইয়র্ক ওয়ার্ল্ডের প্রকাশক জোসেফ পুলিৎজারের উইল অনুসারে ১৯১৭ সাল থেকে পুলিৎজার পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। সাংবাদিক, বিশেষজ্ঞ ও সাবেক পুলিৎজার বিজয়ীদের সমন্বয়ে গঠিত ১৭ সদস্যের একটি বিচারক বোর্ড এ পুরস্কার ঘোষণা করে। সাংবাদিকতায় ১৪টি ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার দেয়া হয়। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে জাতিগত নিপীড়নকে আলোকচিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরায় রয়টার্স ফটো সাংবাদিকদের এ সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে।

যমুনা অনলাইন: টিএফ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply