নাসুম ছোবলে নীল ঢাকার টানা দ্বিতীয় পরাজয়

|

ছবি: সংগৃহীত।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) অষ্টম আসরের শুরুর দুই ম্যাচেই পরাজয় দেখলো তারকাসমৃদ্ধ দল মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা। প্রথম ম্যাচে জেমকন খুলনার বিপক্ষে হারের পর এদিন নাসুমের স্পিনে বিভ্রান্ত হয়ে তারা চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে অসহায় আত্মসমর্পণ করে।

আসরের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে শুরুতে ব্যাট করে ১৬১ রান তোলে মেহেদী হাসান মিরাজের চট্টগ্রাম। জবাবে মাহমুদউল্লাহ-তামিমদের ঢাকা অলআউট হয় ১৩১ রানে। চট্টগ্রাম জয়লাভ করে ৩০ রানের ব্যবধানে।

১৬২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভালোই শুরু করেছিল ঢাকার দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ শেহজাদ। উদ্বোধনী জুটিতে ৪২ রান তোলে এই জুটি। ব্যক্তিগত ৯ রান করে আউট হন শেহজাদ। দলীয় ৭৩ রানে ৪৫ বলে ৫২ রান করে ফেরেন তামিম। এরপর দলের কেউই আর তেমন রান সংগ্রহ করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত ১৯.৫ ওভারে ১৩১ রানে অলআউট হয় ঢাকা।

চট্টগ্রামের হয়ে স্পিন ভেলকি দেখান বাহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ। ৪ ওভার বল করে মাত্র ৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করেন তিনি। ৪ উইকেট নেন জাতীয় দলের আরেক তারকা শরীফুল ইসলাম। ৪ ওভারে ৩৪ রান দেন তিনি। এছাড়া একটি উইকেট নেন মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ ও নাইম ইসলাম।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় চট্টগ্রাম। ২ রান করা কেনার লুইসকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন রুবেল হোসেন। তবে এরপর ২৯ বলে ৪৮ রানের জুটি গড়ে বড় রানের ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন উইল জ্যাকস ও আফিফ হোসাইন। সপ্তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৫৪ রানে আফিফ হোসেন ব্যক্তিগত ১২ রান করে আরাফাত সানির বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরলে ভাঙে এই জুটি। দুই রানের মাথায় আউট হন জ্যাকসও। ২৪ বলে ৪১ রান করেন তিনি।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে ৪৪ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ ও সাব্বির রহমান। ১০০ রানের মাথায় মিরাজ আউট হন ২৫ রান করে। চট্টগ্রাম অধিনায়ককে ফেরান ঢাকার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এরপর ১১৮ রানের মাথায় ১৭ বলে ২৯ রান করে ফিরে যান সাব্বির রহমান। দলীয় ১২০ ও ১২৭ রানে ফিরে যান শামীম হোসেন ও নাইম ইসলামও। তবে এরপরই ১৯ বলে ৩৪ রানের জুটি গড়ে দলের স্কোর চ্যালেঞ্জিং অবস্থানে নিয়ে যান বেনি হাওয়েল ও নাসুম আহমেদ। ইনিংসের শেষ বলে রান আউটে কাটা পড়ার আগে ১৯ বলে ৩৭ রান করেন হাওয়েল। নাসুম অপরাজিত থাকেন ৮ রানে।

ঢাকার হয়ে দুর্দান্ত বল করেন রুবেল হোসেন। চার ওভারে মাত্র ২৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট সংগ্রহ করেন তিনি। একটি করে উইকেট নেন আরাফতা সানি, ইসুরু উদানা, শুভাগত হোম ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

জেডআই/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply