সরকার ইসি গঠনে আইন করে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে: ড. মোশাররফ

|

ফাইল ছবি

সরকার ইসি গঠনে আইন করে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে নতুন তামাশা করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি আরও বলেন, ক্ষমতার লোভে বহু বছর ধরেই মানবাধিকার লঙ্ঘন করে আসছে বর্তমান সরকার। সেসব অপকর্ম আড়াল করতেই জনগণের টাকায় বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ দিয়েছে তারা।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এ সময় ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, দলীয় সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে যাবে না বিএনপি । অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিএনপি নেতারা অভিযোগ করেন, ক্ষমতার প্রায় পুরো সময়টা জুড়েই মানবাধিকার লঙ্ঘন করে আসছে সরকার। তাদের দাবি, শুধু র‍্যাব নয়, সরকারের বিরুদ্ধেও আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা আসা উচিৎ।

ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম বলেন, আজকে র‍্যাবের ওপর না, নিষেধাজ্ঞা সরকারকে দেয়া উচিত, আওয়ামী লীগকে দেয়া উচিত।

ঢাকা মহানগর (উত্তর) বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান বলেন, নির্দলীয়-নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন না করে, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে যদি মুক্ত না করা হয়, যদি দেশনেতা তারেক রহমান দেশে ফিরে আসতে না পারে তাহলে এই দেশের জনগণ সরকারের বিরুদ্ধে স্যাংকশন দেবে ইনশাআল্লাহ।

এসময় ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হওয়ার একমাত্র দায় সরকারের। সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য বহু বছর ধরেই মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে, সেসব অপকর্ম আড়াল করতেই বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করেও তারা ব্যর্থ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

এসময় হঠাৎ করেই ইসি গঠনে আইন করার সমালোচনা করেন বিএনপির এ নেতা। জানান, দলীয় সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচনে যাবেন না তারা। ড. মোশাররফ বলেন, যারা জনগণের সরকার নয়, তারা পার্লামেন্টে বসে তাদের ইচ্ছামতো একটা আইন পাশ করবে। এটা আরেকটা তামাশা জনগণের সাথে।

নেতারা বলেন, গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করার কারণেই বন্দি খালেদা জিয়া। আবারও তাঁর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন তারা

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply