বোতলে বাতকর্ম বিক্রি করা সেই নারীর প্রেমে পড়লেন যুবক! অতপর…

|

ছবি: সংগৃহীত

বোতলে নিজের বাতকর্মের গ্যাস ভরে চড়া দামে বিক্রি করে কোটিপতি হওয়া সেই তরুণীর প্রেমে মজেছেন এক যুবক! এ খবর নিজেই জানিয়েছেন ইউটিউবার ও রিয়েলিটি স্টার স্টেফানি মাট্টো! খবর নিউজ এইটিনের।

৩১ বছরের স্টেফানি মাট্টো পেশায় একজন ইউটিউবার ও রিয়েলিটি স্টার! তিনি নিজের বাতকর্মের গ্যাস বোতলে ভরে বিক্রি করে ২ লাখ ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ কোটি ৭১ লাখ টাকা। ২০২১ সালে নিজের এই আজব ব্যবসা শুরু করেন স্টেফানি। UNFILTRD নামে প্রাপ্তবয়স্কদের এক ওয়েবসাইটে স্টেফানির বাতকর্মের গ্যাসের চাহিদা তুঙ্গে! এক বোতল বাতকর্মের গ্যাস বিক্রি হয় ৭৪ হাজার টাকায়। তবে উৎসবের মৌসুমে বোতলের দামে কিছুটা ছাড়ও দিয়েছিলেন স্টেফানি।

আমেরিকান রিয়্যালিটি শো ৯০ ডে ফিনান্স-এর মাধ্যমে জনপ্রিয় হওয়া স্টেফানি মাট্টো এমনই আজব উপায় অবলম্বন করে কোটিপতি হয়েছেন। স্টেফানি কাচের বোতলে তার বাতকর্ম ভরে বিক্রয় করতেন। কিন্তু এই কাজের জন্য স্টেফানি হার্ট অ্যাটাকের থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পান। এরপরেই স্টেফানি সেই কাজ থেকে অবসর নেন। সম্প্রতি স্টেফানি নিজের লাভ লাইফ সকলের সাথে শেয়ার করেছেন।

স্টেফানি সকলের সাথে শেয়ার করেছেন যে, মনে হয় তিনি তার জীবনের ভালোবাসাকে খুঁজে পেয়েছেন। বিমানে সফর করার সময় তার পাশে বসা একজন তাকে চিনে ফেলেন। সেই ব্যক্তি তার সাথে সেলফিও তোলেন। স্টেফানির মনে করেন সেই ব্যক্তিই হলেন তার সত্যিকারের ভালোবাসা। এর পরে তারা দু’জনেই তাদের ফোন নম্বর শেয়ার করেন এবং তারা দু’জনেই এখন নিজেদের সাথে যোগাযোগে রয়েছেন।

স্টেফানি জানিয়েছেন, তিনি বিমানে মাস্ক পরে বসেছিলেন। সেই সময় তার নজর এক ব্যক্তির ওপরে পড়ে, যিনি শুধু তার দিকেই তাকিয়ে ছিলেন। স্টেফানি এটা দেখে হাসতে থাকেন, যেহেতু তিনি মাস্ক পরেছিলেন তাই সেই ব্যক্তি তার হাসি দেখতে পাননি। কিছু সময় পরে তাদের দু’জনের মধ্যে কথাবার্তা শুরু হয়। স্টেফানি লক্ষ্য করেন তাদের ক্যামিস্ট্রি খুব ম্যাচ করছে। এখন স্টেফানির জীবনে সেই ব্যক্তি খুবই স্পেশাল একজন মানুষ।
আরও পড়ুন: নিজের ‘বাতকর্মের’ গ্যাস বিক্রি করে কোটিপতি হলেন তরুণী!
স্টেফানি আরও জানান, বিমানে মাস্ক পরা থাকলেও সেই ব্যক্তি তাকে চিনতে পেরেছিলেন। সে স্টেফানির গল্প অনলাইনে ফলো করতেন। সেই ব্যক্তি জানতেন স্টেফানি নিজের বাতকর্ম বোতলে ভরে বিক্রয় করার কাজ করেন। সে এটাও জানতেন যে এই কারণে স্টেফানির শরীর খারাপ হয়েছিল এবং তিনি হাসপাতালেও ভর্তি হয়েছিলেন। খুব তাড়াতাড়ি তারা দু’জনে লস অ্যাঞ্জেলসে আসবেন বলেও জানা গেছে। নিজের কাজ এবং হেলথ ইস্যুর জন্য স্টেফানিকে অনেক সমস্যায় পড়তে হলেও এখন খুব ভালো দিন কাটাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্টেফানি।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply