কুয়াকাটায় পর্যটকের ভিড়, কেউ মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি

|

কুয়াকাটায় পর্যটকের ভিড, নেই স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রবণতা।



স্টাফ রিপোর্টার:

আবারও সাগরকন্যা কুয়াকাটায় ভিড় বাড়ছে পর্যটকদের। কনকনে শীত উপেক্ষা করে সমুদ্র সৈকতে হাজারো পর্যটকের উপস্থিতিতে চিরচেনা রূপে যেন ফিরেছে কুয়াকাটা।

সাপ্তাহিক ছুটির দিন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই সৈকতে বিভিন্ন যানবাহনে আগমন ঘটে এসব পর্যটকের। আগত পর্যটকরা সমুদ্রে সাঁতার কাটাসহ প্রিয়জনদের সাথে আনন্দ উল্লাসে মেতে ওঠেন। কুয়াকাটা সৈকতের গঙ্গামতি, লেম্বুরচর, ফাতরারবনসহ অন্যান্য পর্যটন স্পটেও দেখা গেছে পর্যটকদের আনাগোনা।

এতদিন আবাসিক হোটেল-মোটেল, রিসোর্টসহ পর্যটনমুখী ব্যবসায়ীরা পর্যটক শুন্যতার আতঙ্কে ছিলেন। তাদের এ আশঙ্কাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে হাজারো পর্যটকদের আগমন ঘটেছে সাগরকন্যা কুয়াকাটায়। জানা গেছে, আবাসিক হোটেল-মোটেলগুলোর বেশিরভাগই বুকড থাকলেও রুম সঙ্কটে পড়তে হয়নি কোনো পর্যটককে। খাবার হোটেল, ঝিনুক মার্কেটসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্পটগুলোতে দেখা গেছে অসংখ্য পর্যটকের আনাগোনা।

তবে করোনা প্রতিরোধে সরকারের দেয়া বিধিনিষেধের কোন বালাই ছিল না এখানে, পর্যটকরাও উদাসীন। মাস্ক ব্যবহার বা শারীরিক দূরত্ব কি- সেটা যেন ভুলেই গেছেন তারা। আগত পর্যটকদের কাউকেই দেখা যায়নি স্বাস্থ্যবিধি মানতে।

তবে, করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে সৈকতে ট্যুরিস্ট পুলিশের পক্ষ থেকে মাঝে মধ্যে মাইকিং করা হলেও তা আমলে নিচ্ছেন না পর্যটকরা। সমুদ্র সৈকতে আগত বেশিরভাগ পর্যটকই নানা অজুহাতে
স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টি এড়িয়ে যাচ্ছেন।

ট্যুরিস্ট পুলিশের কুয়াকাটা জোনের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল খালেক জানান, মাইকিং করে পর্যটকদের সচেতন করা হচ্ছে বারবার। মাস্ক ছাড়া সৈকতে নামতে নিষেধ করলেও বেশিরভাগ পর্যটকই স্বাস্থ্য সচেতন নন। বিষয়টি ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply