লিবিয়ায় ২২ বাংলাদেশি অভিবাসী হত্যার দায়ে গ্রেফতার ১

|

ছবি: সংগৃহীত

লিবিয়ায় ২২ বাংলাদেশি অভিবাসীকে গুলি করে হত্যার সন্দেহভাজন এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। দীর্ঘ তদন্তের পর বর্বরোচিত ওই হামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তির জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে বলে জানিয়েছে দেশটির অপরাধ তদন্ত বিভাগ।

বুধবার (১৯ জানুয়ারি) লিবীয় সংবাদমাধ্যম লিবিয়া অবজার্ভারের এক প্রতিবেদন ও লিবিয়ার অপরাধ তদন্ত বিভাগের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে অপরাধ তদন্ত বিভাগ জানিয়েছে, ত্রিপোলির দক্ষিণাঞ্চল থেকে পলাতক এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে লিবিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীর একটি চৌকস দল। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ডাকাতি, হত্যা, অস্ত্রসহ সরকারি প্রতিষ্ঠান ও একটি বেসরকারি ব্যাংক বন্ধ করে দেয়া, কর্মীদের ভয় দেখানোসহ অন্তত ৯টি অভিযোগ রয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের মে মাসে লিবিয়ার মিজদা শহরে ৩০ জন অভিবাসীকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এর মধ্যে ২২ জন ছিলেন বাংলাদেশি। নিহত বাকিরা ছিলেন আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের নাগরিক। এ ঘটনায় আরও ১১ জন আহত হয়েছিলেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, বাংলাদেশিসহ ওই ৩০ অভিবাসীদের টাকার জন্য জিম্মি করে রেখেছিল স্থানীয় একটি মানবপাচারকারী চক্র। এ নিয়ে একপর্যায়ে চক্রের সদস্যদের সাথে মারামারি হয় অভিবাসীদের। এতে এক মানবপাচারকারীর মৃত্যু হলে তার প্রতিশোধ নিতেই অভিবাসীদের দিকে এলোপাতাড়ি গুলি চালায় পাচারকারীরা। এতেই প্রাণ হারান ২২ বাংলাদেশিসহ ৩০ অভিবাসী।

উল্লেখ্য, এশিয়া-আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে লিবিয়া হয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপমুখী অভিবাসীদের চাপ বৃদ্ধি পাওয়ায় পুরো রুটে একটি বিশাল মানবপাচারকারী চক্র সক্রিয় রয়েছে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply