মহানবীকে (সা.) অপমান করায় পাকিস্তানি নারীর মৃত্যুদণ্ড

|

ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে একজন মুসলিম নারীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন দেশটির আদালত। মুহাম্মদ (সা.) এবং তার একজন স্ত্রীকে অপমান করা হয়েছে, এমন একটি ছবি ছড়ানোর দায়ে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। পাকিস্তানের কঠোর ধর্ম অবমাননার আইনে বুধবার (১৯ জানুয়ারি) আনিকা আতিককে রাওয়ালপিন্ডির একটি আদালত এই সাজা দেন।

এবিসি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, নিজের রায়ে বিচারক আদনান মুস্তাক বলেন, অভিযুক্ত নারী তার স্ট্যাটাসে (হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজিং প্ল্যাটফর্মে) যে অবমাননাকর কন্টেন্ট শেয়ার করেছেন এবং অভিযোগকারীকে পাঠানো বার্তা এবং ব্যঙ্গচিত্র সম্পূর্ণরূপে অসহনীয় এবং একজন মুসলমানের পক্ষে সহনীয় নয়।

আরও পড়ুন: তালেবানের গুলিতে ৩ পাকিস্তানি পুলিশ নিহত

এদিকে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ২৬ বছর বয়সী আনিকা। আদালতে দেয়া এক বিবৃতিতে আনিকা বলেছেন, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হাসনাত ফারুক তার প্রতি ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ হতে অস্বীকার করার পর তাকে ইচ্ছাকৃতভাবে একটি ধর্মীয় আলোচনায় টেনে নেন।

তিনি বলেন, আমি মনে করি প্রতিশোধের জন্য হাসনাত ইচ্ছাকৃতভাবে এই বিষয়ে টেনে এনেছেন। সেজন্যই তিনি আমার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন এবং হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের সময় যা কিছু হয়েছে তা সংগ্রহ করেছেন হাসনাত।

তবে হাসনাতের অভিযোগ হোয়াটসঅ্যাপের স্ট্যাটাস হিসেবে ধর্ম অবমাননাকর ছবি দেন আনিকা। তাকে এই ছবি সরাতে বললেও আপত্তি জানান আনিকা।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply