ভারতীয় কিশোরকে অপহরণের অভিযোগ চীনা সেনাদের বিরুদ্ধে

|

ছবি: সংগৃহীত

অরুণাচল প্রদেশ থেকে এক ভারতীয় কিশোরকে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে চীনা সেনাদের বিরুদ্ধে। স্থানীয় সংসদ সদস্য তাপির গাও এক টুইটে এ তথ্য জানিয়েছেন।

বুধবার (১৯ জানুয়ারি) পোস্ট করা এক টুইটে এ অভিযোগ তোলেন তাপির গাও। টুইটে তিনি জানিয়েছেন, অপহৃত কিশোরের নাম মিয়াম তারুন। অরুণাচল প্রদেশের আপার সিয়াং জেলার লুংটা জোর এলাকা থেকে চীনের সেনারা তাকে অপহরণ করেছে বলে দাবি তাপির গাওয়ের। অপহৃত কিশোরের ছবিও টুইট করেছেন তিনি।

সাংসদ তাপির গাওয়ের টুইটের স্ক্রিনশট।

অরুণাচলের এ সাংসদ জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার ১৭ বছর বয়সী ওই কিশোরকে অপহরণ করা হয়েছে। জনি ইয়েইইং নামে মিয়ামের এক বন্ধু চীনা সেনাদের হাত থেকে পালাতে সক্ষম হয়। সে-ই এসে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে তারুনের অপহরণ করার কথা জানায়। টুইটে অপহৃত কিশোরের দ্রুত মুক্তির দাবী জানিয়েছেন এ সাংসদ।

তাপির গাও আরও জানান, অপহরণের ঘটনাটি স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নীতিশ প্রামাণিককে জানিয়েছি। অনুরোধ করেছি এ ব্যাপারে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে। পাশাপাশি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও ভারতীয় সেনার নজরে এনেছেন বিষয়টি।


অরুণাচলের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, জিদো গ্রামের ওই দুই কিশোর শিকার করতে সাংপো নদীর তীরবর্তী এলাকায় গিয়েছিল। সেখানেই অপহরণের ঘটনা ঘটে। সাংপো নদীটি অরুণাচল প্রদেশে সিয়াং ও আসামে ব্রহ্মপুত্র নামে পরিচিত।

অরুণাচলের স্থানীয় গণমাধ্যম আরও জানিয়েছে, অপহৃত কিশোরকে মুক্ত করতে ইতোমধ্যেই কূটনৈতিক প্রক্রিয়া শুরু করেছে ভারত। পাশাপাশি, তারোনের অবস্থান এখন কোথায়, তা জানার চেষ্টা চলছে। 

এর আগে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে চীনের সেনারা ৫ ভারতীয় কিশোরকে আটক করেছিল। অরুণাচল প্রদেশের আপারসুবানসিরি জেলা থেকে তাদের আটক করেছিল তারা। সেবার এক সপ্তাহ পর মুক্তি দেয়া হয়েছিল অপহৃতদের।

/এসএইচ 





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply