করোনাকালে এক মাস পর বদলে ফেলুন টুথব্রাশ

|

ছবি: সংগৃহীত

সুস্থ ঝকঝকে দাঁত বহু দিন ভালো রাখতে দন্ত চিকিৎসকেরা কয়েক মাস অন্তর পুরনো টুথব্রাশ বদলে ফেলার উপদেশ দিয়ে থাকেন। করোনাকালে দাঁতের স্বাস্থ্যের গুরুত্ব আরও বেড়েছে। তাই এক মাস অন্তর নতুন টুথব্রাশ ব্যবহার করার কথা বলছেন অনেক দন্ত চিকিৎসক। কিন্তু পুরনো ব্রাশগুলি ফেলে পৃথিবীর আবর্জনা বাড়ানো কোনো কাজের কথা নয়। তার চেয়ে এই ব্রাশগুলি জমিয়ে রাখুন। রোজকার জীবনের অনেক কাজ সহজ হয়ে যাবে টুথব্রাশেই।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে এই ফেলে দেয়া ব্রাশের অনেক ধরনের ব্যবহার জানানো হয়েছে। ফেলে দেয়া ব্রাশের ব্যবহার-

জুতা পরিষ্কার:

জুতার গায়ে ধুলো-ময়লা-কাদা লেগে থাকলে গুঁড়ো সাবান মাখিয়ে রেখে দিন। তারপর ধোয়ার আগে পুরনো টুথব্রাশের সাহায্যে ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন। অনেক সহজে পরিষ্কার হয়ে যাবে। পুরনো হাওয়াই চপ্পল বা বাড়িতে পরার চটিও এভাবে পরিষ্কার করতে পারেন। চামড়ার জুতার বিভিন্ন কোণে ধুলে লেগে থাকলেও টুথব্রাশ দিয়ে চমৎকার পরিষ্কার হবে।

টাইলস পরিষ্কার:

রান্নাঘরের সিঙ্ক, গ্যাসের ওপরের টাইলস, কাউন্টার টপ-এগুলি ঝকঝকে রাখার উপায় কী? বেকিং সোডা এবং ভিনিগার লাগিয়ে রাখতে হবে। তারপর টাইলসের ফাঁকে ফাঁকে কিংবা সিঙ্কের কোণে টুথব্রাশ দিয়ে একটু ঘষলেই সব দাগ নিমেষে পরিষ্কার হয়ে যাবে।

চিরুনি পরিষ্কার:

চিরুনির সরু দাঁড়াগুলির ভেতর থেকে নোংরা পরিষ্কার করার উপায় কী? গরম জলে একটু গুঁড়ো সাবান বা শ্যাম্পু দিয়ে গুলে চিরুনিগুলি ভিজিয়ে রাখুন কয়েক মিনিট। তারপর পানি থেকে তুলে টুথব্রাশ দিয়ে ঘষলেই ময়লা পরিষ্কার হয়ে যাবে।

কি-বোর্ড পরিষ্কার:

কি-বোর্ডে সবচেয়ে বেশি ধুলা জমে থাকে। সেটি পরিষ্কার করাও বেশ কঠিন। তাই একটু পুরাতন ব্রাশ দিয়ে যদি পরিষ্কার করেন, অনেক তাড়াতাড়ি জমে থাকা ধুলা পরিষ্কার হয়ে যাবে।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply